ট্রাফিক রুল না মানলেই বাতিল লাইসেন্স, বাজেয়াপ্ত গাড়ি! বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দেশের সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান বেড়েই চলেছে। যার অন্যতম প্রধান কারণ হিসেবে মনে করা হচ্ছে ট্রাফিক রুল লঙ্ঘন। যে কারণে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু কমাতে সরকার, প্রশাসন এবং জনসাধারণকে একসাথে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)। এবার থেকে যারা ট্রাফিক আইন (Traffic Rules) ভঙ্গ করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন যোগী।

   

এইদিন তিনি উত্তর প্রদেশ রাজ্য সড়ক নিরাপত্তা পরিষদের একটি সভায় সভাপতিত্ব করার সময় তিনি বলেন, ‘প্রয়োজন অনুসারে, ড্রাইভিং লাইসেন্স (Driving Licence) বাতিল করার এবং গাড়িটি বাজেয়াপ্ত করার জন্যও ব্যবস্থা নেওয়া উচিত’। যোগী আদিত্যনাথের পরামর্শ, ‘প্রথমে সচেতনতা তৈরি করুন, বারবার লঙ্ঘন হলে জরিমানা করুন, তারপরও যদি লঙ্ঘন হয় তবে ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিল করতে হবে।’

এইদিন সভা চলাকালে যোগী স্পষ্ট ভাষায় জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যুও রাজ্যের বড় ক্ষতি। সেই সাথে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত মানুষের পরিসংখ্যানের খতিয়ান দেখিয়ে তিনি বলেন, গত ৩ বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর গড় সংখ্যা প্রায় ২০,৯৯০। উত্তরপ্রদেশের ৩০ টি শহরে দুর্ঘটনার সংখ্যা সর্বাধিক। তিনি বলেন, ‘চালান বা অন্যান্য প্রয়োগকারী পদক্ষেপ ট্রাফিক নিয়ম প্রয়োগ করার স্থায়ী সমাধান নয়। সচেতনতার ওপর জোর দিতে হবে। 15 ডিসেম্বর থেকে 31 ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়টিকে ‘রোড সেফটি ফোর্টনাইট’ হিসাবে পালন করা উচিত।’

not allowed to check docs featured

যোগী আদিত্যনাথের মতে, সচেতনতার পাশাপাশি ড্রাইভিং পরীক্ষা এবং প্রশিক্ষণের দিকেও মনোযোগ দিতে হবে। সেই সাথে তিনি জানান, ‘স্পিডব্রেকারগুলো যেন পিঠে-ভাঙা না হয়, সেগুলো টেবিলের শীর্ষে হওয়া উচিত। ভেঙে থাকার কারণে, লোকেরা প্রায়শই তাদের যানবাহন স্পিড ব্রেকার অতিক্রম করার চেষ্টা করে, যা দুর্ঘটনার দিকে পরিচালিত করে।’

আরও পড়ুন: ভেঙে পড়ল IAF প্রশিক্ষণ বিমান, দুর্ঘটনায় মৃত ২ দক্ষ পাইলট! কারণ ঘিরে রহস্য

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশ হল দেশের প্রথম রাজ্য, যেটি সড়ক দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাওয়ার লক্ষ্যে উত্তরপ্রদেশ সড়ক দুর্ঘটনা তদন্ত প্রকল্পকে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে৷ এই স্কিমের অধীনে, তিন বা ততোধিক মৃত্যুর সাথে জড়িত দুর্ঘটনার তদন্ত বাধ্যতামূলক। এবং এই সমস্ত তদন্ত কমিটির মাধ্যমে করতে হবে। জানিয়ে রাখি, সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাসের পরিপ্রেক্ষিতে, উত্তরপ্রদেশ ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে তৃতীয় স্থান থেকে চতুর্থ স্থানে চলে গেছে।