মমতার সরকারকে বিপুল অর্থ সাহায্য কেন্দ্রের, পাঠানো হল ৯৫১ কোটি টাকা! খরচা কোন প্রকল্পে ?

বাংলাহান্ট ডেস্ক : কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ নতুন কিছু নয়। মাঝেমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে রাজ্যের অন্যান্য তৃণমূল সরকারের মন্ত্রীরা বলেন যে আবাস যোজনা, ১০০ দিনের টাকা সহ একাধিক প্রকল্পের অর্থ কেন্দ্র আটকে রেখেছে। তবে এবার কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্যকে দেওয়া হল জলজীবন মিশন প্রকল্পের প্রথম কিস্তির প্রথম ভাগের টাকা।

কেন্দ্র সরকার জলজীবন মিশনে প্রথম কিস্তির প্রথম ভাগের ৯৫১ কোটি টাকা পাঠিয়েছে রাজ্যকে। অনেকেই বলছেন এই বিপুল পরিমাণ টাকা আসায় দ্রুত গতিতে সম্পন্ন হবে এই প্রকল্পের কাজ। কেন্দ্রের এই জলজীবন মিশনের লক্ষ্যই হল প্রতিটি গ্রামীন পরিবারে পরিশ্রুত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়া।

   

আরোও পড়ুন : চাকরি নেই, ক্লাবগুলিকে ৭০ হাজার টাকা! দুর্গাপুজোয় অনুদান নিয়ে বিরাট মন্তব্য হাইকোর্টের, আটকে যাবে?

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে রাজ্যের গ্রামের পরিবারগুলিতে পরিশ্রুত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার জন্য। কিন্তু এর আগে বাংলায় এই প্রকল্প প্রশ্নের সম্মুখীন হয়। কেন্দ্রীয় টিম পর্যবেক্ষণ করে বলে যে বাংলায় ঠিকমতো এই প্রকল্পের কাজ করা হচ্ছে না। একটা সময় আসে যখন কেন্দ্রীয় সরকার ঠিক করে যে বাংলাকে এই প্রকল্পের জন্য টাকা দেওয়া হবে না।

আরোও পড়ুন : এবার থেকে বোর হওয়ার নো চান্স! মেট্রোর কামরায় আসল নয়া চমক

তারপর অবশ্য গতি পায় এই প্রকল্পের কাজ। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয় বাড়ি বাড়ি পরিশ্রুত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার। একটি বেসরকারি সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বর্তমানে বাংলায় পরিশ্রুত পানীয় জলের সংযোগ রয়েছে ৬৬.৩৩ লক্ষ পরিবারে, যা শতাংশের হিসাবে ৩৮.১৯%। এখনো জলের সংযোগ পৌঁছে দিতে হবে ১.৭৩ কোটি পরিবারে।

screenshot 2023 09 29 20 30 35 59

তবে টার্গেট দেওয়া হয়েছে আগামী মার্চ মাসের মধ্যে এক কোটি পরিবারে পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার। ওয়াকিবহালমহল মনে করছে, বিপুল পরিমাণ টাকা কেন্দ্র দিয়েছে এই প্রকল্পের জন্য। তাই কাজ না করে রাজ্য সরকার যদি কেন্দ্রীয় বঞ্চনার অভিযোগ তোলে তাহলে চিঁড়ে ভিজবে না।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর