টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

সুখের বিচ্ছেদ! খোরপোশের টাকায় এশিয়ার ধনীতম মহিলা হলেন চিনা যুবতী

বাংলাহান্ট ডেস্ক: কথায় বলে, বিচ্ছেদ (divorce) সবসময়ই দুঃখের। কিন্তু য়ুআন লিপিংয়ের (yuan liping) গল্প শুনলে সেই বিশ্বাস টলতে বাধ‍্য। বিবাহ বিচ্ছেদই ঘুরিয়ে দিয়েছে তাঁর জীবনের মোড়‍। ৪৯ বছর বয়সী য়ুআন এখন এশিয়ার ধনীতম মহিলা। বিচ্ছেদের পর পাওয়া অর্থে এক ধাক্কায় মহাদেশের সর্বাধিক ধনীদের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন তিনি।
বিবাহ বিচ্ছেদের পর প্রায় ৩২০ কোটি ডলার পকেটস্থ হয়েছে য়ুআনের। শেনঝেন কাংতাই বায়োলজিক‍্যাল প্রোডাক্টস কো এর চেয়ারম‍্যান দু ওয়েইমেইন হলেন য়ুআনের প্রাক্তন স্বামী। বিবাহ বিচ্ছেদের শর্ত হিসাবে নিজের সংস্থার ১৬১.৩ মিলিয়ন শেয়ার য়ুআনের হাতে তুলে দিয়েছেন তিনি।


সোমবার শেয়ার বাজার বন্ধ হওয়া পর্যন্ত এই শেয়ারের মূল‍্য ছিল প্রায় ৩২০ কোটি ডলার। এদিকে ফোর্বস পত্রিকার সাম্প্রতিক তালিকা অনুযায়ী বিচ্ছেদের আগে পর্যন্ত বিশ্বের ৩২০ তম ধনী ব‍্যক্তি ছিলেন ওয়েইমেইন। বছর ৫৬র ওয়েইমেইনের জন্ম কৃষক পরিবারে হলেও নিজের চেষ্টায় এই পদে পৌঁছেছেন তিনি। ১৯৯৫ সালে একটি বায়োটেক সংস্থায় সেলস ম‍্যানেজার পদে চাকরিতে ঢোকেন তিনি। তারপর ২০০৯ এ নিজের একটি আলাদা সংস্থা শুরু করেন ওয়েইমেইন।
অপরদিকে ২০১১ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত কাংতাই বায়োলজিক‍্যাল প্রোডাক্টসের কো ম‍্যানেজার থাকলেও বর্তমানে তিনি অন‍্য একটি সংস্থার ভাইস জেনারেল ম‍্যানেজার। তবে এই বিচ্ছেদ ওয়েইমেইনের সংস্থার জন‍্য খুব একটা সুখকর হয়নি। ফেব্রুয়ারিতে করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কারের কথা ঘোষনা হতেই সংস্থার শেয়ারের চাহিদা আকাশ ছোঁয়া হয়েছিল। কিন্তু সংস্থার চেয়ারম‍্যানের বিচ্ছেদের খবর প্রভাব ফেলেছে সংস্থার শেয়ারে ও ওয়েইমেইনের ব‍্যক্তিগত সম্পত্তিতে।
তবে এমন ঘটনা এই প্রথম নয়। ২০১২ তে চিনের ধনীতম মহিলা উ য়াজুন বিচ্ছেদের সময় শর্ত বাবদ প্রাক্তন স্বামীকে ২৩০ কোটি ডলার দিয়েছিলেন। দক্ষিণ কোরিয়ার শিল্পপতি শে তাই ওন বিচ্ছেদের সময় স্ত্রীকে দিয়েছিলেন সংস্থার ৪২.৩ শতাংশ শেয়ার যার মূল‍্য ১২০ কোটি। আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস বিচ্ছেদের সময় প্রাক্তন স্ত্রী ম‍্যাকেঞ্জিকে সংস্থার ৪ শতাংশ দিয়েছিলেন। বর্তমানে ম‍্যাকেঞ্জি বিশ্বের চতুর্থ ধনীতম মহিলা।

Related Articles