বাতিল প্যানেলে চাকরি, নিয়োগ দুর্নীতিতে গ্রেফতার এসএসসির প্রাক্তন আঞ্চলিক চেয়ারম্যানের স্ত্রী

বাংলা হান্ট ডেস্ক : নিয়োগ দুর্নীতি (Recruitment Scam) নিয়ে বিস্তর অভিযোগ। এমন লজ্জাজনক ইতিহাস বোধহয় বাংলায় (West Bengal) আর দ্বিতীয় নেই। এবার এই দুর্নীতি কাণ্ডে সিআইডির (CID) হাতে গ্রেফতার হলেন স্কুল সার্ভিস কমিশনের পশ্চিমাঞ্চল ও উত্তরাঞ্চলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান শেখ সিরাজুদ্দিনের (Sheikh Sirajuddin) স্ত্রী জেসমিন খাতুন (Jasmine Khatun)। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বাঁকুড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে সিআইডির কর্তারা।

   

সূত্রের খবর, বুধবার তাকে বাঁকুড়া জেলা আদালতে পেশ করা হয়। এইদিন আদালত তাকে আগামী ৪ মার্চ পর্যন্ত তাকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, তদন্ত সূত্র বলছে, ২০১৫ সালে বাতিল হয়ে যাওয়া এসএসসি প্যানেলের ভিত্তিতে ২০১৯ সালে স্কুল শিক্ষিকা হিসেবে নিযুক্ত হন। অভিযোগ, তিনি তার স্বামীর পদের অপব্যবহার করে এই চাকরিটি পেয়েছিলেন।

মিডিয়া রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে, ২০১৫ সালে এসএসসি পরীক্ষায় বসেছিলেন জেসমিন। তবে পরে সেই প্যানেলটি বাতিল হয়ে যায়। যদিও তাতে কিন্তু জেসমিনের চাকরি আটকে থাকেনি। কারণ তৎকালীন সময়ে উত্তরাঞ্চলের চেয়ারম্যান পদে আসীন ছিলেন তার স্বামী সিরাজউদ্দিন। তিনি তার প্রভাব খাটিয়ে স্ত্রীকে চাকরি পাইয়ে দেন।

আরও পড়ুন : ‘আর টাকা চাইব না…’, হকের পাওনা চাইতে গিয়ে মিলেছিল মারধোর, বছর সত্তরের কথা শুনে স্তব্ধ বাংলা

এরপরেই এই বিষয়টি সামনে আনেন বাঁকুড়া জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক পীযূষকান্তি বেরা। বাঁকুড়ার ইন্দপুর ব্লকের ভতড়া শ্রীদুর্গা বিদ্যায়তন হাই স্কুলে সংস্কৃত বিষয়ের শিক্ষিকা জেসমিন খাতুনের চাকরি বৈধ নয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। এরপরেই বিষয়টি যায় সিআইডির হাতে। তদন্ত শুরু হতেই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। হাইকোর্টে সওয়াল, জবাবের সময় নিয়োগ দুর্নীতির কথা শিকার করে নেয় এসএসসি।

আরও পড়ুন : নিমেষেই ধ্বংস হবে ব্যালিস্টিক মিসাইল, ভয়ঙ্কর এক অস্ত্র বানাচ্ছে ভারত! নাম শুনেই কাঁপবে শত্রুরা

recruitment scam

এরপর সিরাজুদ্দিনকে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরানোর পরেই গ্রেফতার করা হয় জেসমিনকে। ঘটনাপ্রসঙ্গে জেসমিনের আইনজীবী বলেন, ‘সিআইডি ঘটনার তদন্ত করছে। জেসমিন খাতুনের বিরুদ্ধে মূল অভিযোগ, বাতিল প্যানেলে তার চাকরি হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় কারও প্রচ্ছন্ন মদত থাকার অভিযোগ রয়েছে। আদালত তাকে ৪ মার্চ পর্যন্ত বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে। আদালতে জামিনের আবেদন জানানো হয়েছে। ঘটনার কেস ডায়েরি চেয়ে পাঠানো হয়েছে।’

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর