‘দিদি তো ভাইকে ফেরাতে পারে না’, দেবের ‘আবদারে’ সায়, লোকসভার আগেই বিরাট ঘোষণা মমতার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ তৃণমূলের টিকিটে ঘাটালের দুবারের সাংসদ তিনি। সংসদ হওয়ার পর থেকেই অজস্রবার দেবের (Dev) মুখে উঠে এসেছে বাংলায় ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান (Ghatal Master Plan) বাস্তবায়নের কথা। এই প্রকল্প কতটা জরুরি, তাও তিনি বারবার বুঝিয়ে গিয়েছেন। তবে শেষ ১০ বছরে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। তবে এবার ২৪ লোকসভা ভোটের আগে ‘গুড বয়’ দেবের আবদার পূরণে ময়দানে নামলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। হুগলি থেকে ঘাটাল নিয়ে বড় ঘোষণা করে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

   

সোমবার হুগলির আরামবাগের সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উপস্থিত ছিলেন তারকা সাংসদ দেবও। মঞ্চে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের জন্য ১২৫০ কোটি টাকা দিচ্ছে রাজ্য সরকার। রাজ্যই এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করবে।” পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দেবের ‘আবদার’ রাখতেই এই ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান করে দেবে রাজ্য। দেবকে “চ্যাম্পিয়ন অফ ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান” আখ্যা দিয়ে ”’দিদি’ বলেন, ”দেব যখন আবদার করেছে, তখন রাজ্য সরকারই এই কাজ করে দেবে। এর জন্য আর কেন্দ্রের উপর আর ভরসা করতে হবে না।”

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ”দেব বহুবার ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের জন্য বলছে। রাজ্য সরকার ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের জন্য ১ হাজার ২৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করল। এর ফলে ১৭ লক্ষ মানুষ উপকৃত হবে। কেন্দ্র টাকা আটকে রেখেছে। তাই ওদের আশায় বসে না থেকে আমি নির্দেশ দিচ্ছি পরিকল্পনা তৈরি করে ৩-৪ বছরের মধ্যে কাজ শেষ করে ফেলতে হবে। মুখ্যসচিবের সঙ্গে আলোচনা করে নিয়েছি। দেব আবদার করেছে। দিদি তো ভাইকে ফেরাতে পারে না। ”

ওদিকে প্রশাসনিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে দেব বলেন, ‘আমি গত ১০ বছর ধরে কেন্দ্রের সঙ্গে লড়াই করছি। কেন্দ্র কিছু করেনি। এবার আমি মুখ্যমন্ত্রীর উপরেই ভরসা রাখছি। আমার বিশ্বাস, উনিই পারবেন এই কাজ বাস্তবায়ন করতে।”

mamata f

আরও পড়ুন: নিয়োগ দুর্নীতিতে বড় খবর! এবার হাজিরা দিতে নথি হাতে নিজামে ‘সেই’ ব্যক্তি, শোরগোল রাজ্যে

প্রসঙ্গত, বেশ কিছুদিন ধরে দেবেন রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে ছিল। রাজনীতি ছাড়ছেন দেব, শেষ কিছু দিনে সাংসদের প্রতিটি কথায় যেন এই জল্পনা আরও জোড়ালো হচ্ছিল। তবে আপাতত সব রাইট ট্র্যাকে। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পরেই দেব বলেন, ‘আমি ছাড়তে চাইলেও, রাজনীতি আমায় ছাড়বে না।’ অর্থ্যাৎ তিনি যে ফের লোকসভায় প্রার্থী হতে চলেছেন সেকথা স্পষ্ট।