২০১৬ সালে বুরহান ওয়ানিকে করেছিলেন নিকেশ, জঙ্গির গুলিতে শহীদ হলেন সেই ভারতীয় জওয়ান

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: জম্মু-কাশ্মীরের (Jammu and Kashmir) অনন্তনাগের সেনা জঙ্গি গুলির লড়াইয়ে শহিদ হয়েছেন কর্নেল মনপ্রীত সিং (Colonel Manpreet Singh)। অনন্ত নাগের (Anantnag) গাদোলে মঙ্গলবার থেকেই শুরু হয়েছিল সেনা-জঙ্গির লড়াই। সেই অভিযানের কমান্ড অফিসার ছিলেন ১২তম শিখ লাইট ইনফ্র্যান্টির কর্নেল মনপ্রীত সিং। এছাড়াও ওই অভিযানে এক মেজর এবং জম্মু-কাশ্মীরের এক ডিএসপি শহিদ হয়েছেন। শহিদ মেজরের নাম আশিস ধনচক এবং মৃত পুলিশকর্তার নাম হুমায়ুন ভাট।

জানা গিয়েছে, স্থানীয় একটি এলাকায় জঙ্গি সংগঠনের সন্ত্রাসবাদীরা গা ঢাকা দিয়েছেন বলে খবর পান সেনা অফিসাররা। শুরু হয় প্রস্তুতি। এররেই শুরু হয় অভিযান। শত্রুপক্ষকে ঘায়েল করতে শুরু হয় আক্রমণ। পাল্টা অতর্কিতে গুলি চালাতে থাকে জঙ্গিরা। সেখানেই প্রাণ হারান মোট তিনজন।

২০১৬ সালে সন্ত্রাসী বুরহান ওয়ানিকে (Burhan Wani) খতম করে নজির করেছিলেন মনপ্রীত। যা তাঁর কেরিয়ারে আলাদা একটি মাইলফলক তৈরি করেছিল। ২০০৩ সালে সেনা বাহিনীতে লেফটেন্যান্ট কর্নেল হন তিনি। এরপর ২০০৫ সালে কর্নেল পদে উন্নীত হন। দেশের শত্রুদের খতম করতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অনেক অপারেশনের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। তাঁর ছোট ভাই সন্দীপ সিং জানিয়েছেন, কর্নেল মনপ্রীত সিং ২০১৯ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত সেনাবাহিনীতে সেকেন্ড হ্যান্ড কমান্ড হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। পরে তিনি কমান্ডিং অফিসার হিসেবে কাজ করেন। বছর দুয়েক আগে আর্মি অ্যাওয়ার্ডেও সম্মানিত হন মনপ্রীত।

এদিকে মনপ্রীতের মৃত্যুর খবর নাকি তাঁর পরিবারকে প্রথমে জানানো হয়নি বলে অভিযোগ করা হয়েছে। মনপ্রীতের স্ত্রী জগমিৎ কৌর দুই সন্তানকে নিয়ে চণ্ডীগড়ে তাঁর বাপের বাড়িতে থাকেন। পেশায় তিনি শিক্ষিকা। শহিদ মনপ্রীতের দাদা বীরেন্দ্র বলেন, ‘বিকেলে মনপ্রীতের স্ত্রীকে জানানো হয় যে তাঁর স্বামী জখম হয়েছেন, কিন্তু তারপরে মনপ্রীতের মৃত্যুর খবর তাঁদের দেওয়া হয়নি।’ এই নিয়ে একই সুর মনপ্রীতের শ্বশুরের গলায়। তিনি জানান, ‘আমরা গতকাল রাতে জানতে পেরেছি মনপ্রীত আর নেই।’

Avatar
Monojit

সম্পর্কিত খবর