রামমন্দির উদ্বোধন বয়কট বামেদের! ধর্ম নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ তুলে অযোধ্যা যাচ্ছেন না বৃন্দা, ইয়েচুরিরা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : আগামী ২২শে জানুয়ারি অযোধ্যায় উদ্বোধন হবে রাম মন্দিরের। অনেকেই মনে করছেন লোকসভা নির্বাচনের আগে রাম মন্দির উদ্বোধন বিজেপির একটি পলিটিক্যাল স্ট্রাটেজি। দেশ তো বটেই, বিদেশেরও একাধিক তারকাকে এই রাম মন্দির উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

   

CPIM-এর শীর্ষ নেতৃত্বকেও এবার রাম মন্দিরের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হল। দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিকে রাম মন্দিরের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তাহলে কি এই পলিটব্যুরোর এই নেতা যাচ্ছেন ২২ তারিখের রাম মন্দির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে?

আরোও পড়ুন : গ্রাহকদের জন্য দুর্দান্ত অফার Jio’র! রিচার্জ করুন ৩১ ডিসেম্বরের আগে, পেয়ে যান ১০০০ টাকা

এই প্রশ্নের জবাবে পলিটব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাট তাদের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন। তিনিবলেছেন, “সিপিএম অংশগ্রহণ করবে না রাম মন্দিরের উদ্বোধন ও প্রাণ প্রতিষ্ঠার অনুষ্ঠানে। আমরা সম্মান করি প্রত্যেকের ধর্মীয় বিশ্বাসে। তবে রাজনীতির সাথে মিশিয়ে দেওয়া হচ্ছে ধর্ম। এটা মোটেও ঠিক কাজ নয়।”

আরোও পড়ুন : পাত্তা পাবে না Rapido, Uber! এবার শহরে মিলবে সস্তার বাইক সার্ভিস, দুর্দান্ত পরিকল্পনা রাজ্য সরকারের

পাশাপাশি সীতারাম ইয়েচুরি মঙ্গলবার জানিয়েছেন, “বিষয়টি নিয়ে এখনো কিছু বলিনি আমি কাউকে। আমার সাথে দেখা করতে আসেন নৃপেন্দ্র মিশ্র এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এক নেতা। আমার হাতে তাঁরা আমন্ত্রণ পত্র তুলে দিয়েছেন। ধর্মীয় বিশ্বাস যার যার ব্যক্তিগত। আমাদের দেশের প্রত্যেকটি মানুষের ব্যক্তিগতভাবে ধর্মীয় আচার পালন করার অধিকার রয়েছে।”

তিনি আরোও বলেন, “আমাদের দেশের সংবিধান কোনও নির্দিষ্ট ধর্মকে চিহ্নিত করে না। রিলিজিয়াস স্টেটের মর্যাদা পায় না ভারত। তবে দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উৎসাহে ও সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় তৈরি হচ্ছে রাম মন্দির। এই বিষয়টি নিয়ে সোজাসাপ্টা রাজনীতি করা হচ্ছে। ভারতের সংবিধানের সাথে এটি মোটেও সামঞ্জস্যপূর্ণ বিষয় নয়। আমার পক্ষে এই ধরনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা সম্ভব নয়।”

230915082701 04 india ram mandir rebuild

CPIM-এর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির বক্তব্য নিয়ে বিজেপির মীনাক্ষী লেখি বলেছেন, “আমন্ত্রণপত্র সবার কাছেই পাঠানো হয়েছে। ভগবান রাম যাদের ডেকেছেন, অযোধ্যায় কেবল তারাই এসে পৌঁছাতে পারবেন।” প্রসঙ্গত, অযোধ্যার রাম মন্দিরের চিরকাল বিরোধিতা করে এসেছে দেশের বামপন্থী দলগুলি।

 

সম্পর্কিত খবর