ক্যামেরা সহ সাজঘরে যেতেই হইহই রব নেটদুনিয়ায়, নিয়ম ভেঙেছেন মোদী! কী রয়েছে ICC-র বিধিতে?

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দেশের কোটি কোটি মানুষের মন ভেঙে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া (Australia)। টানা ১০ ম্যাচ জেতার পর ফাইনালে গিয়ে হার মেনে নেয় ইন্ডিয়া‌ (India)। যদিও দেশের মানুষ জানিয়ে দিয়েছে যে, তারা সব দলের সাথেই আছে। সেই একই বার্তা দিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও (Narendra Modi)। সাজঘরে গিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটারদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা করলেন তিনি। পাশাপাশি দিল্লিতে আমন্ত্রণও জানালেন নমো। যদিও কীর্তি আজাদের মতে তিনি ICC এর নিয়ম ভেঙেছেন।

pm narendra modi 212031902 16x9 0

প্রশ্ন তুলেছেন কীর্তি আজাদ 

এইদিন তিনি নিজের টুইটার (অধুনা এক্স) হ্যান্ডেলে লেখেন, ‘‘যে কোনও দলের কাছে সাজঘর সব থেকে পবিত্র জায়গা। সেখানে ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফ ছাড়া কাউকে ঢোকার অনুমতি দেয় না আইসিসি। প্রধানমন্ত্রীর উচিত ছিল সাজঘরের বাইরে ক্রিকেটারদের সঙ্গে দেখা করা।’’ পাশাপাশি তার প্রশ্ন, ‘‘মোদী কি দলের সমর্থকদের অনুমতি দেবেন তাঁর শোয়ার ঘর, বসার ঘর বা শৌচালয়ে গিয়ে দেখা করার? রাজনীতিবিদদের থেকে ক্রীড়াবিদেরা অনেক বেশি নিয়ম মেনে চলেন।’’

প্রশ্নের মুখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী 

এখানেই থেমে থাকেননি কীর্তি আজাদ‌‌। ‘অপয়া’ বলে কটাক্ষও করেছেন প্রধানমন্ত্রীকে। কীর্তি আজাদের এই বক্তব্যের পর থেকেই সমাজমাধ্যমে যে প্রশ্নটা ঘোরাফেরা করছে তা হল সত্যিই কি ক্যামেরাম্যান-সহ ভারতীয় দলের সাজঘরে গিয়ে নিয়ম ভেঙেছেন মোদী? কারণ ক্রিকেটার খোদ আর তাদের স্টাফ ছাড়া আর কাউকে সাজঘরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়না। সমাজমাধ্যমে সাজঘর থেকে যেসব ভিডিও ভাইরাল হয় তাও বোর্ডের অনুমোদন নিয়েই হয়।

কী রয়েছে ICC-র নিয়মমালায়? 

তবে দেশের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কোনও বিধিনিষেধ রয়েছে বলেও শোনা যায়নি কখনও। এমনকি তিনি সাজঘরে গেলে দলের বিরুদ্ধে কোনওরকম পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানাও যায়নি। এমনকি মোদীর সাজঘরে যাওয়ার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বা আইসিসির তরফ থেকেও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তাই নেটিজনদের ধারণা, এই বিষয়ে নির্দিষ্ট করে বিসিসিআই বা আইসিসির কোনও বাধা হয়ত নেই।

narendra modi consoles team india after heartbreaking loss against australia

আগেও ঘটেছে এরকম ঘটনা 

এছাড়াও চলতি বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের দিন যুজবেন্দ্র চহালও সাজঘরে ঢুকে বাকি খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তাছাড়া হার্দিক পান্ডিয়াও উপস্থিত ছিলেন একদিন। এই নিয়েও অনেকে প্রশ্ন তুলেছিল সামাজিক মাধ্যমে। তবে আইসিসির নিয়মমালায় হয়ত এসব নিয়ে স্পষ্ট কোনও বিধিনিষেধ নেই তাই কোনোরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। উল্লেখ্য, সাধারণত আইসিসির চেয়ারম্যান বিজেতা দলের হাতে ট্রফি তুলে দিয়ে থাকেন। তবে চলতি বছর দেখা গেছে অস্ট্রেলিয়ার হাতে ট্রফি তুলে দিচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এটাও কি আইসিসির নিয়মের বিরুদ্ধে? প্রশ্ন উঠছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর