দেননি প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স, ১৯৯৭ সালেই দোলনকে সিঁদুর পরান দীপঙ্কর! শেষমেশ ফাঁস আসল কাহিনী

বাংলাহান্ট ডেস্ক : দীপঙ্কর দে ও দোলন রায়ের কেমিস্ট্রি এখন টলিউডের অন্যতম আলোচিত একটি সম্পর্ক। যদিও প্রথম থেকেই এই জুটি সম্বন্ধে নানান ধরনের আলোচনা-সমালোচনা হয়ে আসছে। কিছুদিন আগে দোলন রায় দীপঙ্কর দের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বলেছিলেন সংবাদমাধ্যমে। এই জুটি সম্পর্কে বহু মানুষ নানান ধরনের মন্তব্য করেছেন অতীতে।

   

যদিও দীপঙ্কর ও দোলন নিজেদের মতো করে ভালো রয়েছেন দিনের শেষে। দোলন ও দীপঙ্করের আলাপ ১৯৯৭ সালে। বিদেশে একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় তাঁদের ঘনিষ্ঠতা শুরু হয়। বর্ষীয়ান অভিনেতা দীপঙ্কর দে ভালোবেসে ফেলেন দোলনকে। যদিও দোলনের থেকে দীপঙ্করের বয়স অনেক বেশি হওয়ায় প্রথমে দোলন রায় এই সম্পর্কে রাজি হননি।

আরোও পড়ুন : এ কী কান্ড! বেলুনের বদলে কন্ডোম উড়িয়ে চলল সেলিব্রেশন, ভোটের ফল বেরতেই যা ঘটনা ঘটল পাকিস্তানে

অন্যদিকে তখন দীপঙ্কর দে ছিলেন বিবাহিত। যদিও পরে দীপঙ্করের ভালবাসার টানে দোলন মেনে নেন সবকিছু। দীপঙ্কর নাকি ১৯৯৭ সালেই বিয়ে করেছিলেন দোলন রায়কে! দীপঙ্কর ও দোলনের সহবাস নিয়ে অনেকেই নানান ধরনের কটুক্তি করেছিলেন। তবে সম্প্রতি দোলন রায় জানালেন, তারা নাকি অনেক আগেই বিয়ে সেরে ফেলেছিলেন!

Dipankar Dey,Dolon Roy,Jagannath Temple,Actor,Actress,Tollywood,দীপঙ্কর দে,দোলন রায়,টলিউড,অভিনেতা,অভিনেত্রী,Bangla,Bengali,Bengali News,Bangla Khobor,Bengali Khobor

দোলন জানিয়েছেন, ১৯৯৭ সালে বিদেশে জগন্নাথ মন্দিরে দীপঙ্কর আমার সিঁথিতে সিঁদুর পরিয়ে দেয়। যদিও সেটি হয়েছিল খুব গোপনে। সেটাই আমার মন জয় করে নিয়েছিল। তারপর একদিন মা সারদার জন্ম তিথিতে ও আমাকে মঠে নিয়ে যায়। সেদিন মহারাজের সামনে আমায় আবার সিঁদুর পরিয়েছিল। আমরা এই কথা আগে কখনোই প্রকাশ্যে জানাইনি।