সমীক্ষায় উঠে এল ভয়ঙ্কর তথ্য, বিমান চালাতে চালাতেই ঘুমিয়ে পড়েন ৬৬ শতাংশ পাইলট

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দেশে হোক বা বিদেশে, বিমান (Flight) পরিষেবার দৌলতে আজকাল ভ্রমণ খুব সহজ। আর এই কারণেই দিন দিন বাড়ছে আকাশপথে ভ্রমণকারীর সংখ্যা। তবে আপনি যদি প্রথমবারের জন্য বিমানে ভ্রমণের পরিকল্পনা করছেন, তাহলে এয়ারলাইন্স সম্পর্কিত এই তথ্যগুলি আপনার জেনে রাখা দরকার।

একথা আমরা সকলেই জানি যে, পাইলটের (Pilot) ‘কাজ’ মানে অবশ্য বিমান চালানো, আর তাদের ‘অফিসের চেয়ার-টেবল’ বলতে ককপিট। তবে জানেন কি এ ককপিটে বসে থাকতে থাকতে চোখ বন্ধ হয়ে আসে অনেকেরই। সমীক্ষা বলছে, ৫৪ শতাংশের ঘুমের মাত্রা অত্যন্ত বেশি‌। বাকি ৪১ শতাংশের চোখ জুড়িয়ে আসার মাত্রা মাঝারি।

দূরে হোক অথবা ছোট যাত্রাপথ, দিন হোক অথবা রাত, সবসময়ই একটি বিমান আকাশে ওড়ার ক্ষেত্রে পাইলটের উপর সবচেয়ে বেশি নির্ভরশীল। এমতাবস্থায় পাইলট যদি ঘুমিয়ে যায় তাহলে তো সাড়ে সব্বনাশ। তবে জেনে অবাক হবেন যে, পাইলটরাও ঘুমানোর অনূমতি পান। শুনতে অদ্ভুত এবং ভীতিকর মনে হলেও এটা সত্যি যে, কখনও কখনও পাইলটরা বিমানটিকে বাতাসে ওড়ানোর সময় ঘুমিয়ে পড়েন

আসলে পাইলটরা এটি অটো পাইলট মোডের মাধ্যমে এটি করতে সক্ষম হন। এটি পাইলট ঘুমিয়ে থাকার পরে বিমানকে নিয়ন্ত্রণ করতে কাজ করে। তবে এই সময়ে দ্বিতীয় পাইলট জেগে থাকেন এবং বিমানের উপর তার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকে। এইভাবে উভয় পাইলট অটো পাইলট মোডের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে কিছুক্ষণ করে ঘুমিয়ে নেন। উল্লেখ্য, এই বিশ্রামের সময়কাল কিন্তু খুব বেশিক্ষণ হয়না।

1 1080x675 1

প্রসঙ্গত, দূরে হোক অথবা ছোট যাত্রাপথ, দিন হোক অথবা রাত, সবসময়ই একটি বিমান আকাশে ওড়ার ক্ষেত্রে পাইলটের উপর সবচেয়ে বেশি নির্ভরশীল। আর একজন পাইলট তার এই দায়িত্ব ঠিকভাবেই পালন করে থাকেন। কারণ তাদের বিমানের এত এত যাত্রীর দায়িত্ব থাকে তাদের কাঁধে। তাই তাদের ক্লান্তি দূর করাটাও গুরুত্বপূর্ণ। সেই কারণেই ক্লান্তি দূর করতে পাইলটরা ঘুমাতে পারেন। এবং তাদের বিশ্রাম নেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট জায়গাও রয়েছে বিমানের মধ্যে।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর