জ্যোতিপ্রিয়র পর রেশন দুর্নীতি-কাণ্ডে আরেক জায়গায় হানা ইডির! কী হতে চলেছে? তোলপাড় রাজ্য

বাংলা হান্ট ডেস্ক: রেশন দুর্নীতির (Ration Scam) তদন্তের শিকড়ে পৌঁছতে চাইছে ইডি (Enforcement Directorate)। এবার শনিবার সাতসকালে উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর (Bongaon) কালুপুরের আটাকলে হানা কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার।

সূত্রের খবর, এই আটাকলে (Atta Mill) রেশনের গম আনা হত। ইতিমধ্যেই আটাকল এবং আটাকল মালিকের বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে ইডি। জানা যাচ্ছে, পাচারের পথে বাজেয়াপ্ত হওয়া গম শুধুমাত্র বাকিপুরের (Bakibur Rahaman) রাইস মিলেই নয়, সেই গম আনা হয়েছিল বনগাঁরই আটাকলেও।

২০২০ সালের অক্টোবর মাসে বসিরহাটের গোজাডাঙ্গা থেকে বাজেয়াপ্ত হয়েছিল প্রচুর ট্রাক ভর্তি গম। ১৭৫টি ট্রাক থেকে প্রায় ৫ হাজার ১০১ মেট্রিক টন গম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। সেই টনটন গম বাংলাদেশে (Bangladesh) পাচার করা হচ্ছিল। কিন্তু তার আগেই বসিরহাট থানার পুলিশের তৎপরতায় সেই বিপুল পরিমাণ গম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। এরপর সেই বিপুল পরিমাণ গম পাঠানো হয়েছিল বাকিপুরের চালকল-সহ মোট চারটি মিলে। সেই তালিকায় এই বনগাঁর রাধাকৃষ্ণ আটা মিলও ছিল। ১ হাজার ৬৫২ মেট্রিক টন গম পাঠানো হয়েছিল এই আটাকলে।

jyotipriya rice

এদিকে রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় ইডি তৎপরতার মধ্যেই নড়েচড়ে বসল রাজ্য সরকার (West Bengal Government)। খাদ্য দপ্তরের পোর্টালে এবার বাকিবুর রহমানের সংস্থা। এনপিজি রাইস মিল প্রাইভেট লিমিটেডকে হোল্ড করা হয়েছে। যার ফলে ওই চালকলে আর ধান পাঠানো হবে না সরকারের তরফে। নিয়ম মতো, রাজ্য সরকারের তালিকায় থাকা চালগুলিতে ধান পাঠানো হয়। তারপর ওই চাল কলগুলি থেকে রাজ্য সরকার চাল নেয়। গমের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম। এদিকে রাধাকৃষ্ণ আটাকলের ভূমিকা কী ছিল, তা জানতে এবার সরাসরি মাঠে নামল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

Avatar
Monojit

সম্পর্কিত খবর