মমতাকে ‘বাপ’ তুলে আক্রমণ! ভোটের আগেই কড়া পদক্ষেপ নির্বাচন কমিশনের! ঘুম উড়ল দিলীপের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ‘বাপ তো ঠিক করুন। যার তার মেয়ে হওয়া ঠিক নয়’! মঙ্গলবার সকালে তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) উদ্দেশে এই মন্তব্য করেন বর্ধমান দুর্গাপুরের বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। স্বভাবতই গর্জে ওঠে তৃণমূল শিবির। চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, কুণাল ঘোষ সহ বাংলার শাসক শিবিরের একাধিক নেতা-নেত্রী এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেন। এবার মুখ্যমন্ত্রী সম্বন্ধে দিলীপের ‘কুমন্তব্যে’র অভিযোগের বিষয়ে জেলাশাসককে রিপোর্ট দিতে বলল নির্বাচন জমিশন।

   

মেদিনীপুরের সাংসদ তথা বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে। রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক (সিইও) সূত্রে জানা যাচ্ছে, পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসকের কাছে এই প্রেক্ষিতে রিপোর্ট তলব করা হয়েছে। সেই রিপোর্ট আসলে দিল্লিতে কমিশনের (Election Commission) কাছ পাঠানো হবে। এরপর তা খতিয়ে দেখার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, রবিবার বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের প্রার্থী হিসেবে দিলীপ ঘোষের নাম ঘোষণা করেছে পদ্ম শিবির (BJP)। মঙ্গলবার সকালে দুর্গাপুরের হোটেল থেকে বেরিয়ে চতুরঙ্গ মাঠে হাঁটতে যান তিনি। এরপর স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথাবার্তা, দেওয়াল লিখনের পর ‘চায়ে পে চর্চা’ কর্মসূচিতে যোগ দেন।

আরও পড়ুনঃ ‘এর আগে এই সরকার…’, তৃণমূলের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন BJP-র তাপস, ভেতরকার খবর সব ‘ফাঁস’

এসবের মাঝেই সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করেন দিলীপ। বিজেপি প্রার্থী বলেন, ‘বাংলা নিজের ভাইপোকে চায়…দিদি গোয়ায় গিয়ে বলেন আমি গোয়ার মেয়ে। ত্রিপুরায় গিয়ে বলে আমি ত্রিপুরার মেয়ে। আমি বলি বাপ তো ঠিক করুন। যার তার মেয়ে হওয়া ঠিক নয়’। দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য ঘিরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে ‘কুরুচিকর মন্তব্যে’র অভিযোগের ভিত্তিতে এবার রিপোর্ট তলব করল নির্বাচন কমিশন।

dilip ghosh mamata banerjee

প্রসঙ্গত, এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী কীর্তি আজাদকে নিয়েও কথা বলেন বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, ক্রিকেটার হিসেবে কীর্তি আজাদের সম্মান করেন তিনি। তবে রাজনীতির ময়দানে ‘দিদি’র হাত ধরে এসেছেন তিনি। দিলীপের কথায়, ‘উনি দিদির হাত ধরে এসেছেন। সেই দিদির পা-ই এখন টলছে। বাড়ির লোকেরাই এখন দিদিমণিকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেন। এবার বাংলার মানুষ কখন তাঁকে ধাক্কা দেবেন সেটা ধরতে পারবেন না’।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর