বিপুল অঙ্কের নগদ টাকা সহ বেআইনি অস্ত্র! হানা দিতেই বড় সাফল্য পেল ED, তোলপাড় রাজ্য

বাংলা হান্ট ডেস্ক : বছর শুরুতেই ফের একবার ঝোড়ো তল্লাশি শুরু করল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি (Enforcement Directorate)। দুর্নীতির জাল গোটাতে এবার এই তদন্তকারী সংস্থা পৌঁছে গেছে হরিয়ানায় (Hariyana)। ভোরের আলো ফোটার আগেই এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের হাতে এল বিপুল অঙ্কের নগদ টাকা, বিপুল সংখ্যক অবৈধ অস্ত্র (Illegal Arms), নানা ধরণের অপরাধমূলক সামগ্রী এবং ১০০ মদের বোতল।

   

বাংলার পর এবার ইডির নজরে হরিয়ানা। রাজ্যটির আইএনএলডি নেতা এবং প্রাক্তন বিধায়ক দিলবাগ সিং (Dilbagh Singh) এবং তার সহযোগীর আস্তানায় হানা দিয়েছে ইডি। দেশে তো বটেই পাশাপাশি দিলবাগের বিদেশের সম্পত্তিও খতিয়ান ঘেঁটে দেখছে তদন্তকারী আধিকারিকরা। আর এই খানাতল্লাশিতে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। এককথায় কুবেরের ধন পেলেন ইডি আধিকারিকরা। শোনা যাচ্ছে টাকা গুনতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন তারা।

সূত্রের খবর, শুক্রবার ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই নিরাপত্তা বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ইডি আধিকারিকরা পৌঁছে যায় দিলবাগ সিংয়ের বাড়িতে। ইতিমধ্যেই বাড়ির চারপাশ মুড়ে ফেলা হয়েছে নিরাপত্তা রক্ষীদের দিয়ে। শুরু হয় খানা তল্লাশি। নগদ টাকা তো মিলেইছে সেই সাথে উদ্ধার হয়েছে বিপুল সংখ্যক বিদেশি অস্ত্র ও ৩০০টি কার্তুজ। ইডি সূত্রে খবর, এই অস্ত্র বেআইনি।

gddls7qaeaad7xk

আরও পড়ুন : বছরের শুরুতেই সুখবর! বোনাস বাড়ছে সিভিক পুলিশদের, মিলবে এত টাকা

শোনা যাচ্ছে, অবৈধ খনির মামলায় এই অভিযান চালিয়েছে ইডি। গতকাল সকাল থেকেই হরিয়ানার বেশ কয়েকটি জায়গায় অভিযান চলছিল। একাধিক জায়গা থেকে নানা ধরণের তথ্য এসেছিল তদন্তকারী কর্মকর্তাদের হাতে। সেই সূত্র ধরেই কি দিলবাগ সিংয়ের ঘরে পৌঁছালেন অফিসাররা? উঠছে প্রশ্ন। সূত্রের খবর, দিলবাগ সিংয়ের পাশাপাশি তার ঘনিষ্ঠ খনি ব্যবসায়ীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন : ‘বাঁদরের হাতে নারকেল, কুণালকে বহিষ্কার…’, ভোটের আগেই অভিষেককে বিঁধলেন করিম

উল্লেখ্য, হরিয়ানার পাশাপাশি সোনিপত থেকে কংগ্রেস বিধায়ক সুরেন্দ্র পানওয়ারের বাড়িতেও গত ২৫ ঘণ্টা ধরে চলছে ম্যারাথন তল্লাশি। সেখানেও খনি ও ই-কনভেয়েন্স কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত মামলায় তথ্য সংগ্রহ করছেন ইডি আধিকারিকরা। ওদিকে কর্নালে বিজেপি নেতা মনোজ ওয়াধওয়ার বাড়িতেও তল্লাশি চালানো হয়েছে। সেখান থেকে একাধিক নথিপত্র তুলে আনা হয়েছে। জানিয়ে রাখি, মনোজ ওয়াধওয়ারও খনি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত।