টাইমলাইনভারতআন্তর্জাতিক

ইউক্রেনে নিহত নবীনের বাবা ছেলের দেহ দেখে এমন সিদ্ধান্ত নিলেন, আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ল সবাই

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকা যুদ্ধে প্রাণ হারিয়েছে বহু মানুষ এবং সেই সকল জনগণের মাঝে ভারতীয় ছাত্রদের নামও পাওয়া যায়। যুদ্ধের মাঝে কিভ শহরে আটকে থাকা ভারতীয় মেডিকেল পড়ুয়া নবীন গুলিবর্ষণের মাঝে নিজের প্রাণ হারায়। অনেক সংগ্রামের পর তার দেহ এদিন এসে পৌঁছেছে তার নিজের বাড়িতে। নিজের ছেলের শবদেহ দেখার পর শোকস্তব্ধ পিতা নিলেন এক আশ্চর্যজনক সিদ্ধান্ত যা শুনে আপনিও আবেগ বশীভূত হয়ে পড়বেন।

সূত্রের খবর, কিভ শহরে গুলিবর্ষণের মধ্যে প্রাণ হারায় ভারতীয় মেডিকেল পড়ুয়া নবীন। এরপর সেখানে তার শবদেহ রেখে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয় এবং বহু সংগ্রামের পর অনেক কষ্ট করে তার দেহ কর্ণাটক রাজ্যে তার নিজ বাসভবন নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউক্রেন থেকে ভারতীয়দের ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য কর্ণাটক রাজ্য দ্বারা নিযুক্ত করা আধিকারিক। তিনি বলেন, অনেক সংগ্রাম করে কিভ থেকে তার দেহ পোল্যান্ড হয়ে নিয়ে আসা হয় ভারতে।

নবীনের দেহ এসে পৌঁছতে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী থেকে একাধিক ব্যক্তিত্ব তাকে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানানোর জন্য এসে পৌঁছান। অবশ্য সবাই আবেগঘন হয়ে পড়েছে ছেলেকে দেখে পিতার নেওয়া একটি সিদ্ধান্তে। নবীনের পিতা জানান যে, তার ছেলের শবদেহ তারা কর্নাটকের একটি মেডিকেল কলেজে দান করবেন।

এরই মাঝে, নবীনের মরদেহ নিয়ে আসার সময় বিমানবন্দরে হাজির হয় কংগ্রেস নেতা এবং তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করেন দেশে মেডিকেল কলেজ গুলির হাল ফেরানোর জন্য। তিনি বলেন যে, মেডিকেল পড়ার জন্য নবীনের প্রাপ্ত নম্বর যথেষ্ট ভালো হওয়া সত্বেও এখানে সুযোগ না পাওয়ার কারণে ইউক্রেন যেতে বাধ্য হয় সে। ফলে এখানকার কলেজগুলির দিকে কেন্দ্রীয় সরকারকে নজর দিতে পরামর্শ দেন তিনি।

Related Articles