অবশেষে সুখবর! এই দিন থেকে DA বাড়ছে রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের, বড় ঘোষণা মমতার

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগেই মমতার মাস্টারস্ট্রোক! অবশেষে মহার্ঘ্য ভাতা (Dearness Allowance) নিয়ে সমঝোতায় এল পশ্চিমবঙ্গ সরকার (Government Of West Bengal)। চাকরিপ্রার্থীদের এতদিনের আন্দোলনের পর অবশেষে মুখ তুলে চাইল রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবারই মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি নিয়ে বড় বয়ান দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। ষষ্ঠ কমিশনের আওতায় বাড়তে চলেছে ডিএ।

   

এইদিন মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, খ্রিস্টমাস এবং নববর্ষের উপহার স্বরূপ রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা পেতে চলেছেন অতিরিক্ত ৪ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতা। সূত্রের খবর, আগামী ২০২৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকেই বাড়তে চলেছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের কাঙ্খিত ডিএ। আর এই খবরে সিলমোহর লাগিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এখন প্রশ্ন হল, এবার থেকে মহার্ঘ্য ভাতা স্বরূপ কত টাকা পাবেন রাজ্য সরকারের কর্মচারীরা? এইদিন ঘোষণার সময় মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এবার থেকে ষষ্ঠ কমিশনের আওতায় মহার্ঘ্য ভাতা পাবেন রাজ্য সরকারের কর্মচারীরা। এবং এই নয়া ডিএ লাগু হবে আগামী ২০২৪ এর ১ জানুয়ারী থেকে। অর্থাৎ নতুন বছরে ১০ শতাংশ হারে ডিএ পাবেন কর্মীরা।

আরও পড়ুন : প্রথম ৫ থেকে আউট অনুরাগের ছোঁয়া, মুখ রক্ষা করল তোমাদের রাণী! বেঙ্গল টপার কে? রইল পাশা পাল্টানো TRP List

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এতদিন পর্যন্ত ছয় শতাংশ হারে ডিএ পাচ্ছিলেন রাজ্য সরকারের কর্মচারীরা। যেখানে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা ডিএ পাচ্ছিলেন ৪৬ শতাংশ হারে। যদিও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের ডিএ ফের এক দফায় বাড়তে চলেছে বলেই খবর। অর্থাৎ যারা আপাতত সপ্তম বেতন কমিশনের আওতায় ৪৬ শতাংশ হারে ডিএ পান তারা খুব শীঘ্রই ৫১ শতাংশ হারে ডিএ পেতে পারেন।

আরও পড়ুন : খুচরো বাজারে কমতে চলেছে চালের দাম, স্বস্তি ফিরবে হেঁশেলে! বড় পদক্ষেপ মোদী সরকারের

অর্থাৎ রাজ্য সরকারি কর্মচারী এবং কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের ডিএ-র পার্থক্য সেই ৪০ শতাংশই রয়ে যাচ্ছে। যা নিয়ে বেশ ভালোরকম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে রাজ্য সরকারের কর্মচারীরা। এই প্রসঙ্গে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের নেতা রাজীব দত্ত বলেন, ‘ব‍্যবধানটা (ছিল) ৪০%, উনি ৪% ঘোষণা করছেন। মাননীয়া মুখ‍্যমন্ত্রীকে বলি এককের ঘরে শূন‍্যটা কোথায়? আপনি তো ট্রেডমিলে বাজেট কষেন। শূন‍্যটাকে বামদিকে না বসিয়ে চার এর ডান দিকে বসান। আমরা কিন্তু ভিক্ষা চাইছি না।’