‘আগুনে ঘি ঢালবেননা’, সন্দেশখালি কাণ্ডে নীরবতা ভাঙলেন নুসরত, ধেয়ে এল চরম কটাক্ষ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : বিগত দেড়মাস ধরে উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে সন্দেশখালি (Sandeshkhali)। শেখ শাহজাহানের (Sheikh Shahjahan) অনুগামীরা ইডি কর্তাদের উপর চড়াও হওয়ার পর থেকেই ধিকিধিকি করে জ্বলছিল আগুন। তবে শেষ পাঁচ-ছয় দিনে তা দাবানলের আকার ধারণ করেছে। সন্দেশখালির মহিলাদের নির্মম পরিস্থিতি দেখে গোটা রাজ্য যখন শিহরিত তখনও দেখা মেলেনি স্থানীয় সাংসদ নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan)।

   

তবে অবশেষে নীরবতা ভাঙলেন তিনি। গত কয়েকদিন তার অনুপস্থিতি নিয়ে যে আলোচনা সমালোচনা চলছিল এইদিন তা নিয়ে কথা বললেন তিনি। এইদিন তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, সন্দেশাখালির ঘটনায় প্রশাসনের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছেন তিনি। একই সাথে মানুষকে প্ররোচনায় পা না দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহান।

এইদিন সাংসদ বলেন, ‘এটা বিভেদের সময় নয়, একসঙ্গে লড়াই করা দরকার। সন্দেশখালির মানুষের জন্য সবরকম সদার্থক ভূমিকা পালন করছে রাজ্য সরকার। প্রশাসনের সঙ্গে থাকুন।’ তিনি আরও বলেন, “কেউ প্ররোচনায় পা দেবেন না। কেউ প্ররোচনা দেবেন না। এই ইস্যু নিয়ে রাজনীতি করবেন না। আগুনে ঘি ঢালবেন না।”

আরও পড়ুন :

বিগত দেড়মাস ধরেই সংবাদ শিরোনামে রয়েছে সন্দেশখালি‌। এলাকার বেতাজ বাদশা শেখ শাহজাহান ‘ফেরার’ হতেই লুক আউট নোটিশ জারি করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। গোটা এলাকাকে মুড়ে ফেলা হয় সুরক্ষাকবচে। জায়গায় জায়গায় লাগানো হয় সিসিটিভি ক্যামেরা, চলতে থাকে নজরদারি। আর তাতেই বুকে বল পেয়েছে সন্দেশখালির অত্যাচারিত মানুষগুলো।

আরও পড়ুন : রেশন দুর্নীতি মামলায় নয়া মোড়, সকাল সকাল সল্টলেক-সহ একাধিক জায়গায় তল্লাশি ইডি-র

গ্রামের মহিলারা এক জোট হয়ে লাঠি, ঝাঁটা হাতে রাস্তায় নেমেছেন শাহজাহান ও তাঁর সাগরেদদের গ্রেপ্তারির দাবিতে। পরিস্থিতি এমনই অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে যে শেষমেষ ১৪৪ ধারা জারি করে পুলিশ। এসবের মধ্যে রাজ্যপাল এলাকা পরিদর্শনে পৌঁছালেও দেখা মেলেনি স্থানীয় তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানের। বিমানবন্দরে তাকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে রীতিমত এড়িয়ে গেছেন তিনি। তারপর থেকেই সাংসদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করে আম জনতা।

আরও পড়ুন : বৃষ্টি-বজ্রপাতের সঙ্গে ভয়ঙ্কর দমকা হাওয়া, সরস্বতী পুজোয় ভাসবে দক্ষিণবঙ্গ! IMD-র ভয়ঙ্কর রিপোর্ট

উল্লেখ্য, সন্দেশাখালির এই অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতিতেও সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ অ্যাকটিভ ছিলেন অভিনেত্রী সাংসদ। ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে রিলস, পোস্ট সবকিছুই নিয়মিত শেয়ার করে চলেছিলেন নায়িকা। তবে এতদিন পেরিয়ে গেলেও সন্দেশখালিতে যাওয়ার সময় হয়ে ওঠেনি। তারপর থেকেই শুরু হয়েছিল সমালোচনা। অবশেষে সোমবার সন্দেশখালি নিয়ে মুখ খুললেন নুসরত। যদিও নেটিজনদের কথায়, এটি ড্যামেজ কন্ট্রোল ছাড়া আর কিছুই নয়।