বিমান ওড়া দেখতে গিয়ে ঘাড় ধাক্কা খান রক্ষীদের, জেদে নিজেই বিমান বানিয়ে ফেললেন পঞ্চম পাশ যুবক

বাংলাহান্ট ডেস্ক : মানুষের স্বপ্ন নীল আকাশের মতই বাঁধনহীন। বাস্তবতা, বাধা, নিষেধ, কাল সীমানার গন্ডি পার করে সেই স্বপ্ন ছুঁতে চায় তার উচ্চতাকে। এমনই এক স্বপ্ন দেখেছিলেন রাজস্থানের যুবক। তার স্বপ্ন ছিল বিমানবন্দর থেকে কিভাবে একটি প্লেন ওঠা নামা করে তা দেখার। সেই স্বপ্নের বশেই তিনি ছুটে যান বিমানবন্দরে। কিন্তু সেখানেও তো কিছু নিয়ম কানুন আছে! সবাই তো আর সব জায়গায় প্রবেশ করতে পারে না! নিরাপত্তারক্ষীদের কাছ থেকে রীতিমতো ঘাড় ধাক্কা খেয়ে নিজের স্বপ্নকে পূরণ করার জন্য নিজেই বানিয়ে ফেললেন আস্ত একটি এরোপ্লেন।

   

স্বপ্নের কারিগর বজরঙ্গী ওরফে ব্রিজমোহন রাজস্থানের জয়পুরের রাজলদেসরের বাসিন্দা। পড়াশোনা করেছেন ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত। বাড়ির কাছেই একটি মোবাইল ও কম্পিউটার সারানোর দোকানের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করেন। সেই সাদামাটা নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলেটিই বানিয়ে ফেলেছেন একটি আস্ত এরোপ্লেন। বিমানটিতে রয়েছে ৪৫ লিটারের জ্বালানি ট্যাংক। বাজরাঙ্গীর দাবি অনুসারে, এই বিমানটি ঘন্টায় ১৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত উড়ে যেতে পারে।

এছাড়াও বজরঙ্গী দাবি করেছেন, তার নিজের হাতে তৈরি করা বিমানটিতে দুজনের বসার জায়গা রয়েছে। তিনি জানিয়েছেন এই বিমানটি তৈরি করতে তার প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা মতো খরচা হয়েছে। তার মোবাইল ও কম্পিউটার সারানোর দোকান থেকে করা আয় এবং কিছু আত্মীয়-স্বজনের আর্থিক সহযোগিতায় তিনি এই প্লেনটি তৈরি করেছেন বলে তার দাবি।

বিমান বানানো সম্পন্ন হলেও এখন তার ভাবনা-চিন্তা অন্য একটি জায়গায়। এই বিমানটি ওড়াবেন কি করে? বিমান উড়ানোর অনুমতি চেয়ে ইতিমধ্যেই সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন বজরঙ্গী। স্বাভাবিকভাবেই তার গ্রামের মানুষেরা আপ্লূত হয়েছেন তার এই কাজে। এখন সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন কবে বজরঙ্গীর এই স্বপ্নের বিমানটি আকাশে উড়তে পারে তা দেখার জন্য।