হরর থেকে থ্রিলার, গায়ে কাঁটা দেওয়া এই ৫ কোরিয়ান ওয়েব সিরিজ দেখলে ভুলে যাবেন নাওয়া খাওয়া

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আপনিও কি বলিউড বা হলিউড সিনেমা এবং ওয়েব সিরিজ দেখে দেখে বিরক্ত হয়ে পড়েছেন? তাহলে এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্যই। কারণ আজ আমরা এমন ৫ টি কোরিয়ান ড্রামা এবং সিরিজ সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি যা দেখলে মন ভালো হবেই। তবে অনেকের কাছেই ভাষাটা একটা বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তবে আমরা যে ড্রামাগুলির কথা বলব তার প্রত্যেকটিরই হিন্দি ভার্সন উপলব্ধ। আপনার মুঠোফোনে নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রিপশন থাকলেই দেখতে পারবেন এই সিরিজগুলি।

   

ক্র্যাশ ল্যান্ডিং অন ইউ (Crash Landing On You) : এর গল্পটি দক্ষিণ কোরিয়ার একজন সফল ব্যবসায়ী মহিলাকে নিয়ে। যিনি ঘটনাক্রমে একটি ঝড়ের সময় উত্তর কোরিয়ায় প্যারাগ্লাইড করেন। সেখানে তিনি উত্তর কোরিয়ার এক সামরিক কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করেন। এখান থেকে কি সে আর নিজের দেশে ফিরতে পারবে? পরবর্তী জার্নিটাই দেখানো হয়েছে এই সিরিজে।

স্কুইড গেমস (Squid Games) : এতে একটি অদ্ভুত খেলা দেখানো হয়েছে। এখানে দেখানো হয়েছে মানুষ কিভাবে টাকার লোভে পড়ে প্রাণ হারায়। কে বিজয়ী হবে এবং শেষ পর্যন্ত কে টিকবে সেটা জানার জন্য মুখিয়ে থাকবেন আপনি।

সুইট হোম (Sweet Home) : এটি একটি হরর কে-ড্রামা। ড্রামায় একটি মেয়ের গল্প দেখানো হয়েছে যে তার বাবা-মায়ের মৃত্যুর পরে ভেঙে পড়ে এবং নানা ধরণের খারাপ ভাবনা তার মনে ভিড় করে। একটা সময় পর এইসব চিন্তা পৈশাচিক রূপ ধারণ করে। এরপর যেটা ঘটেছে তা আসলেই ভয়ঙ্কর। আপনি যদি হরর মুভি ফ্যাসিনেটেড হন তাহলে অবশ্যই এটি দেখুন।

বিজনেস প্রপোজাল : একটি ভীষণ আকর্ষণীয় কে-ড্রামা হল বিজনেস প্রপোজাল। এটি একটি কমেডি ওয়েব সিরিজ, যার অনেকগুলি পর্ব রয়েছে। একটি মেয়ে ব্লাইন্ড ডেটে যাওয়ার পর জানতে পারে যে, সে যার সাথে ডেট করছে সে তারই বস।

হেলবাউন্ড (Hellbound) : মূলত নরকের ছবি আঁকা হয়েছে এই ড্রামায়। নরকের কিছু অদ্ভুত প্রাণী মানুষের শাস্তি নির্ধারণ করে। এতে মানুষকে আগে থেকেই দেখানো হয় যে তারা মারা যাচ্ছে এবং পরে তাদের মৃতদেহ পাওয়া যায়। সবে মিলিয়ে বেশ রহস্যময় একটা পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে গোটা ড্রামা জুড়ে। এই সাসপেন্স-থ্রিলার ওয়েব সিরিজটি অবশ্যই দেখুন।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর