খরচ বাড়ল LPG-র, এখন থেকে গ্যাস সিলিন্ডার নিতে দিতে হবে ৮০০ টাকা বেশি! লাগু নয়া নিয়ম

বাংলা হান্ট ডেস্ক : সাধারণত গৃহস্থ বাড়িতে যে LPG গ্যাস ব্যবহার হয় তা আসে একটি ধাতব সিলিন্ডারে। তবে এবার থেকে বদলে যাচ্ছে সেই ধারণা। এবার ভারি ভারি লোহার সিলিন্ডারের (Iron Cylinder) দিন শেষ। এবার থেকে লোহার সিলিন্ডারের বদলে কম্পোজিট সিলিন্ডারে (Composite Cylinder) করেই এলপিজি (Liquefied Petroleum Gas) নিতে হবে গ্রাহকদের। কোথা থেকে এই সিলিন্ডার কিনতে পারবেন এবং কী তার পদ্ধতি? সবটাই জানাবো আজকের প্রতিবেদনে।

   

260163 aburicompositesallcylinders3

৮০০ টাকাতেই মিলবে কম্পোজিট সিলিন্ডার

সূত্র বলছে, অতিরিক্ত ৮০০ টাকা দিলেই মিলবে এই কম্পোজিট সিলিন্ডার। আজকের দিনে একটি সিলিন্ডার নেওয়ার জন্য প্রথমে গ্রাহকদের ২২০০ টাকা জমা করতে হয়। তবে কম্পোজিট সিলিন্ডারের জন্য সেই অঙ্ক হবে ৩০০০ টাকা। যদি কেউ ডবল সিলিন্ডার নিতে চান তার জন্য জমা করতে হবে ১৬০০ টাকা। পাশাপাশি পুরনো লোহার সিলিন্ডার জমা করে কম্পোজিট সিলিন্ডার নেওয়ারও ব্যবস্থা রয়েছে।

কম্পোজিট সিলিন্ডারের সুবিধা

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমান দিনে গৃহস্থ বাড়িতে যে রান্নার গ্যাস ব্যবহার হয় তার ওজন থাকে ১৪.২ কেজি। এর সাথে যোগ হয় লোহার সিলিন্ডারের ওজন। সেক্ষেত্রে একটা ভর্তি সিলিন্ডারের ওজন অনেকটাই বেশি হয়ে যায়। তবে কম্পোজিট সিলিন্ডারের ক্ষেত্রে সেই ওজন অনেকটাই কমে যায়। কারণ মূল সিলিন্ডারটি অনেক হালকা হওয়ায় এতে কোনও বাড়তি ওজন যুক্ত হয়না।

আরও পড়ুন : ভরা মঞ্চে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কেঁদে উঠলেন অরিজিৎ! হাতে কার ছবি? জানলে আপনারও চোখ ভিজবে

সূত্র বলছে, কম্পোজিট সিলিন্ডারের সুযোগ সুবিধা অনেক। যেহেতু এটির ওজন অনেকটাই কম তাই এটি খুব সহজেই বাড়ির এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় করা যায়। এবং এটি এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে যাতে বাইরে থেকেই বোঝা যাবে যে সিলিন্ডারে কতটা গ্যাস রয়েছে। যেহেতু লোহার নয় তাই মরচে ধরারও কোনও ভয় নেই‌। ফলে মেঝে নষ্ট হওয়ারও কোনও ভয় নেই।

আরও পড়ুন : রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মুখে হাসি, মেটাতে হবে ৮ বছরের বকেয়া! কড়া নির্দেশ হাইকোর্টের

সূত্র বলছে, যেসব গ্রাহকদের ইন্ডিয়ান অয়েলের ইন্ডেন গ্যাস রয়েছে তারা তাদের পুরনো সিলিন্ডার ফেরত দিয়ে এই নতুন সিলিন্ডার নিয়ে আসতে পারবেন। আর যারা একেবারেই নতুন গ্যাসের কানেকশন নেবেন তাদের জন্য ১০ কেজির সিলিন্ডারের জন্য এককালীন ৩ হাজার টাকা ধার্য করা হয়েছে। গ্যাস ডিলারদের মতে, দেশে ইন্ডিয়ান ওয়েলের গ্রাহকই বেশি। সংস্থার তরফ থেকেই নির্দেশিকা পাঠানো হচ্ছে ডিলারদের কাছে। যদিও এখনও পর্যন্ত সরকারিভাবে কাগজে কলমে এই নীতি জারি করা হয়নি তবে খবর এই যে, এই নির্দেশ সরকারেরই।