টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘গান্ধী-অসুর’ বিতর্কে জড়ানো চন্দ্রচূড় পরিবেশ বিজ্ঞানের গবেষক! ভোটে লড়েন মমতার বিরুদ্ধেও!

বাংলাহান্ট ডেস্ক : দক্ষিণ কলকাতার রুবি পার্কে অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার (Akhil Bharatiya Hindu Mahasabha) দুর্গাপুজোর এবছরই প্রথম। আর সূচনা লগ্নেই তৈরি হল রাজনৈতিক বিতর্ক। বিতর্কের কেন্দ্রে রয়েছেন ওই সংগঠনের রাজ্য সভাপতি চন্দ্রচূড় গোস্বামী। রাজনীতির জগতে অবশ্য নতুন নন চন্দ্রচূড়। গেরুয়া শিবিরে তাঁর যোগাযোগ বহু দিনের। অনেক আগেই সেখানে পা রেখেছেন পরিবেশ বিজ্ঞানের এই গবেষক।

উচ্চশিক্ষিত চন্দ্রচূড় পরিবেশ বিজ্ঞান নিয়ে স্নাতকোত্তর করেছেন। এখন পিএইচডি করছেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘লেকচারার’ হিসাবে কাজেরও অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। এর পাশাপাশি, গানেও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি রয়েছে চন্দ্রচূড়ের। এ সবের মধ্যেই দীর্ঘ দিন আগে থেকে গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে ওঠে চন্দ্রচূড়ের। এখন তিনি সামলাচ্ছেন সংগঠনের একাধিক দায়িত্ব। গেরুয়া শিবিরের ‘স্বস্তিকা ডিজিটাল টিভি’-র প্রধান সম্পাদকের পদেও রয়েছেন তিনিই।

২০২১ সালে ভোটের ময়দানেও লড়াই করেন চন্দ্রচূড়। ওই বছর ভবানীপুরের উপনির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী মমতার বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী হিসাবে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। তবে মাত্র ৮১টি ভোট পেয়েই শেষ হয় তাঁর নির্বাচন অভিযান। সেই চন্দ্রচূড়ের নাম এ বার জড়িয়ে পড়ল দুর্গাপুজোয় অসুর মূর্তি নিয়ে বিতর্কে।

হিন্দু মহাসভার দুর্গাপুজোর অসুর মূর্তি মহাত্মা গান্ধীর অনুকরণে তৈরি বলে সৃষ্টি হয়েছে তুমুল বিতর্কের। তার জেরে বদলেও দেওয়া হয় অসুরের মূর্তি। ইতিমধ্যেই এই বিষয় নিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের হয় চন্দ্রচূড় এবং তাঁর সংগঠনের বিরুদ্ধে। তবে বিতর্ককে পাত্তাই দেন না তিনি। পুজো-বিতর্কের উত্তরে চন্দ্রচূড় বলেন, ‘আমি গ্রেফতার হলে হব। কিন্তু আমি সত্যি কথা বলতে ভয় পাই না।’

Related Articles