ভারতের জয় চাপ বাড়াবে BCCI-এর ওপরে! রাহুলরা দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ জিততেই মন্তব্য গম্ভীরের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে (South Africa vs India) ইতিহাস সৃষ্টি করেছে ভারতীয় দল (Indian Cricket Team)। কেবল দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে প্রোটিয়া শিবিরকে তাদের ঘরের মাটিতে হারিয়ে ওডিআই সিরিজ জয়ের রেকর্ড গড়েছেন লোকেশ রাহুল (KL Rahul)। তরুণ ও অনভিজ্ঞ দল নিয়ে তার নেতৃত্বে সিরিজে প্রশংসনীয় ক্রিকেট খেলেছে ভারত। গতকাল সিরিজ নির্ধারক ম্যাচে কঠিন ব্যাটিং পিচে সঞ্জু স্যামসনের (Sanju Samson) দুর্দান্ত শতরান তফাৎ গড়ে দেয় দুই দলের মধ্যে। সেই সঙ্গে অবশ্যই প্রশংসা প্রাপ্য ভারতীয় বোলারদের।

   

কাল ৪৯ রানে ভারত ২ উইকেট হারানোর পর কঠিন পরিস্থিতিতে ব্যাট হাতে নামেন সঞ্জু। আগের ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হওয়ায় এই ম্যাচে ব্যর্থ হলে পুরোমাত্রায় সমালোচনার শিকার হওয়ার সম্ভাবনা ছিল। সেই চাপ মাথায় নিয়েই ভারতীয় ইনিংসকে গড়ে তোলার কাজটা করতে শুরু করেন তিনি। এরপর ৬৬ বলে নিজের প্রথম ৫০ রান সম্পূর্ণ করেন তিনি। এরপর পরবর্তী ৫০ রান করেন মাত্র ৪৫ বল খেলে।

sanju samson century odi

শেষপর্যন্ত ১১৪ বলে ৬টি চার এবং ৩টি ছক্কা সহ ১০৮ রানের একটি ইনিংস খেলেন তিনি। মূলত তিলক ভার্মার (৫২) সাথে তার ১১৬ রানের পার্টনারশিপ ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। তারপর দক্ষিণ আফ্রিকা রান তাড়া করতে নামলে অর্শদীপদের (৪/৩০) দুরন্ত বোলিং পুরোপুরি ম্যাচের রূপরেখা বদলে দেয়।

এরপরে সঞ্জু স্যামসনের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীর (Gautam Gambhir)। তিনি মনে করছেন যে সঞ্জু স্যামসনের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের এই প্রথম শতরান যেন তার কেরিয়ারের পুনর্জন্ম ঘটালো। এর আগে আইপিএলে (IPL) একাধিকবার নিজের প্রতিভার প্রদর্শন ঘটালেও কোনওদিনই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (BCCI) কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচকরা ধারাবাহিকভাবে তাকে ভারতীয় দলে জায়গা দেননি। কিন্তু এই শতরান নির্বাচকদের কাজটা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অনেকটাই কঠিন করবে বলে মনে করছেন গম্ভীর।

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ওডিআই ফরম্যাটে সঞ্জুর রেকর্ড দুর্দান্ত। মাত্র ৬ টি ওডিআই ম্যাচে তিনি ৫ বার দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাটিং করেছেন। এই ৫ ইনিংসে তিনি ১১৯ গড়ে ৯৯.১৬ স্ট্রাইক রেটে ১টি হাফ-সেঞ্চুরি ও একটি শতরান সহ ২৩৮ রান করেছেন। এই বিশেষ প্রতিপক্ষকে দেখলেই যেন নিজের সেরাটা বার করে আনেন তিনি।