সামাজিক নিয়মকে বুড়ো আঙুল, কাকার সাথেই সাত পাকে ঘুরলেন যুবতী! তাজ্জব গোটা দেশ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ভালোবাসা যে এক বড়োই অদ্ভুত জিনিস। সম্পর্ক বা বয়স দেখে প্রেম ভালোবাসা হয় না। তাই কোনও কিছু পরোয়া না করে বিয়ে করলেন এই যুগল। সমাজকে (Society) তোয়াক্কা না করে গাঁটছড়া বাঁধলেন তারা। প্রেমের গল্প শুনতে তো বেশ ভালোই লাগে। কিন্তু এটি এমন একটি প্রেম কাহিনী (Love Story) যা দেখলে আপনার চোখ কপালে উঠবে। চলুন দেখে নিই।

   

সামাজিক রীতিনীতিকে তোয়াক্কা না করে এক যুবতী গাঁটছড়া বাঁধলেন তার কাকার সাথে। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) কানপুরের (Kanpur)। এই যুবতী আর্য সমাজের মন্দিরে (Arya Temple) গিয়ে কাকাকে বিয়ে করেছেন। এই বিয়ের সম্পর্কে দুই বাড়ির কেউই জানতেন না। বিষয়টি সামনে আসে শনিবার। ওই দিন যুবতীর বাবা ঘতমপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

যুবতী ঘতমপুর (Ghatampur) কোতয়ালি (Kotyali) এলাকার বাসিন্দা। গত বছর তিনি বিএসসি (BSC) পরীক্ষা পাশ করেছেন। দূরসম্পর্কের কাকা আকাশের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল তার। তার কাকা আকাশ রতনপুর (Ratanpur) এলাকার বাসিন্দা। দুজনেই প্রেমের সম্পর্কে থাকার ফলে এক সঙ্গে ঘর বাঁধার কথা ভেবেছিলেন। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তাদের পরিবার মত দেননি। ফলে কাউকে পরোয়া না করে পালিয়ে গিয়ে গাঁটছড়া বাঁধলেন এই দু-জন।

যদিও যুবতীর বাবা আকাশের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। মেয়েকে প্রলুব্ধ করার অভিযোগে আকাশের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। সেইমত আকাশকে গ্রেপ্তার করতে তার বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ (Police)। কিন্তু সেখানে থেকে পুলিশ তাদের দুজনকেই পায়নি। পরিবারের কাছ থেকে তাদের নম্বর জোগাড় করেছেন পুলিশ। সেই নম্বর ট্র্যাক (Number Track) করে জানা গিয়েছে, তারা হরিয়ানায় রয়েছে।

পুলিশ হরিয়ানা যাওয়ার প্রস্তুতি নিলে, সেই সময় থানায় এসে হাজির হয় দম্পতি। যুবতী পুলিশকে জানায়, ‘আমি প্রাপ্তবয়স্ক। আমি নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেছি। আমরা আর্য মন্দিরে গিয়ে বিয়ে করেছি। আকাশ আমার দূরসম্পর্কের কাকা। কিন্তু এই নিয়ে কে কি বললো তাতে আমার বিন্দু মাত্র যায় আসে না। আমি নিজের সারাটা জীবন আকাশের সাথেই কাটাতে চাই’। তাছাড়া সেই যুবতী পুলিশকে তাদের বিয়ের সার্টিফিকেটও দেখিয়েছে। এই বিষয়ে ঘতমপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে, ‘যুবতীর বয়ান আমরা রেকর্ড করেছি। মেডিক্যাল পরীক্ষাও করা হয়েছে। এরপর তাদের বিষয়টি নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে’।