ধার করে ১০০ দিনের টাকা মেটাচ্ছে রাজ্য সরকার! ঋণের অঙ্ক শুনলে চোখ কপালে উঠবে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ১০০ দিনের প্রকল্পের বকেয়া টাকা মেটাচ্ছে না কেন্দ্র। একাধিকবার তৃণমূলের (TMC) মুখে শোনা গিয়েছে এই অভিযোগ। এরপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘একলা চলো’ নীতি অনুসরণের সিদ্ধান্ত নেন এবং সকল টাকা মিটিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। এবার এই নিয়ে প্রকাশ্যে এল অবাক করে দেওয়া তথ্য! অর্থ দপ্তর সূত্রে জানা যাচ্ছে, ১০০ দিনের বকেয়া টাকা শোধ করতে বাজার থেকে ধার করতে হয়েছে রাজ্য সরকারকে (Government of West Bengal)। ঋণের অঙ্কটা কত জানেন?

বাজেট পেশ করার আগে রাজ্যের শাসক দলের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল, ২১ ফেব্রুয়ারি টাকা ফেরত দিয়ে দেওয়া হবে। গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাজ্য বাজেটে ৩৭০০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘোষণা করা হয়। তবে বাজেট অধিবেশনের সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) জানান, আরও কয়েকটা দিন সময় লাগবে। এরপর ১ মার্চ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়।

এই ঘোষণার পর গত ২৩ ফেব্রুয়ারি এই খাতে ২৬৫০ কোটি টাকা ছাড়ে রাজ্য সরকার। এবার অর্থ দপ্তর সূত্রে খবর, সেই টাকা মেটানোর জন্য বাজার থেকে রাজ্যকে ঋণ নিতে হয়েছে। ১০০ দিনের বকেয়া টাকা মেটানোর জন্য রাজ্য সরকারকে ৩০০০ কোটি টাকা বাজার থেকে ধার নিতে হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

সূত্র মারফৎ খবর, ২০২৩-২৪ অর্থবর্ষে বাজার থেকে ৭৩,০০০ কোটি টাকা ধার করেছে রাজ্য সরকার। এই বছর মোট যা আয় হবে বলে ধরেছে রাজ্য, তার প্রায় ২৩.৭২ শতাংশ বাজার থেকে নেওয়া ধারের মাধ্যমে আসবে। এছাড়াও জানা যাচ্ছে, ২০২৪-২৫ আর্থিক বছরে শুধুমাত্র বাজার থেকে ৭৯,৭২৭ কোটি টাকা ধার করবে রাজ্য। সেই হিসেবে রাজ্যের মোট ধারের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়াবে ৬,৯৩,২৩১ কোটি ৬৬ লাখ টাকায়।

আরও পড়ুনঃ বিহারীবাবু শত্রুঘ্নকে জোর টক্কর! আসানসোলে BJP প্রার্থী এই ফেমাস ভোজপুরী নায়িকা, চাপে তৃণমূল

west bengal cm mamata banerjee

২০২৪-২৫ আর্থিক বছরে ১০০ দিনের বকেয়া মেটানোর টাকা খরচ হওয়ার কথা। তবে রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই টাকা ছেড়ে দিয়েছে। এদিকে ২০২৩-২৪ অর্থবর্ষ শেষ হয়নি। সেই হিসেবে চলতি অর্থবর্ষ থেকেই ১০০ দিনের বকেয়া টাকা মেটাচ্ছে রাজ্য সরকার। তাই কোষাগারে চাপ পড়ছে বলে খবর।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর