আগামীকাল শেষ হচ্ছে ডেডলাইন, তার আগেই ২০০০ টাকা নিয়ে বড় কথা জানালেন RBI গভর্নর

বাংলা হান্ট ডেস্ক: উৎসবের মরশুমের ঠিক আগে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার (Reserve Bank Of India)-র তরফে শুক্রবার বড়সড় সুখবর সামনে আনা হয়েছে। মূলত, টানা চতুর্থবারের জন্য রেপো রেট ৬.৫ শতাংশে বজায় রাখার বিষয়টি জানানো হয়েছে। অর্থাৎ এর অর্থ হল, এবারও বাড়ি, গাড়ি সহ বিভিন্ন লোনের ক্ষেত্রে মাসিক কিস্তিতে (EMI) কোনো পরিবর্তন হবে না। পাশাপাশি, ২০০০ টাকার নোট জমার বিষয়েও বড় তথ্য সামনে এনেছেন RBI-এর গভর্নর শক্তিকান্ত দাস (Shaktikanta Das)।

   

তিনি বলেছেন যে, সার্কুলেশন থেকে প্রত্যাহার করা ২০০০ টাকার নোটের ৮৭ শতাংশ ব্যাঙ্কে জমা হিসেবে ফিরে এসেছে। পাশাপাশি, অবশিষ্ট পরিমাণ অন্যান্য মূল্যের নোটের সাথে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। এদিকে, দ্বি-মাসিক মুদ্রানীতি পর্যালোচনার ঘোষণার পরে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে গভর্নর জানান যে, গত ১৯ মে ২০২৩ পর্যন্ত সার্কুলেশনে থাকা ২০০০ টাকার ৩.৫৫ লক্ষ কোটি টাকার নোটের মধ্যে ১,২০০ কোটি টাকা এখনও ফেরত আসেনি।

governor gave a big update regarding the 2,000 rupees

৩.৪২ লক্ষ কোটি টাকার নোট ফেরত এসেছে: RBI গত শনিবার জানিয়েছিল যে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩.৪২ লক্ষ কোটি টাকার ২০০০ টাকার নোট ফেরত এসেছে। কিন্তু, ১৪,০০০ কোটি টাকার নোট তখনও ফেরত আসা বাকি ছিল। এমতাবস্থায়, কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক নোট ফেরত দেওয়ার সময়সীমা এক সপ্তাহ বাড়িয়েছিল। এদিকে, মুদ্রাস্ফীতির বিষয়ে গভর্নর জানিয়েছেন যে, RBI মুদ্রাস্ফীতি ৪ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্যে “জোরালোভাবে” ফোকাস করতে চায়। পাশাপাশি মূল্যবৃদ্ধি কম না হওয়া পর্যন্ত মুদ্রানীতি মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে কাজ চালিয়ে যাবে।

আরও পড়ুন: উৎসবের মরশুমে RBI-এর দুর্দান্ত উপহার! নেওয়া হল এই বড় সিদ্ধান্ত, জেনে আনন্দে লাফাবেন আপনিও

কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থ নিয়ে চিন্তা নেই: গভর্নর বলেন যে, সরকারের ব্যাঙ্কার হিসাবে, কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থ নিয়ে RBI-এর কোনো উদ্বেগ নেই। এই প্রসঙ্গে ডেপুটি গভর্নর জে. স্বামীনাথন জানিয়েছেন, ১৩ থেকে ১৪ শতাংশের সামগ্রিক ঋণ বৃদ্ধির বিপরীতে ৩৩ শতাংশের “বাহ্যিক” ঋণ বৃদ্ধি RBI-কে ব্যক্তিগত ঋণের বিষয়ে মনোযোগ দিতে এবং ব্যাঙ্কগুলিকে যেকোনো ঝুঁকি থেকে দূরে রাখার ক্ষেত্রে পদক্ষেপ নিতে অগ্রসর করেছে।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ হামলার শিকার! গাড়ির কাঁচ ভাঙল উত্তেজিত জনতা, ভাইরাল ভিডিও

এদিকে, গভর্নর দাস বিনিয়োগকারীদের “সঙ্কটের সম্ভাবনা অন্বেষণ” করতে এবং যথাযথ ব্যবস্থা নিতে বলেছেন। গভর্নর জানিয়েছেন যে, “আমরা যদি অডিটবিহীন ফলাফলগুলি দেখি, সেক্ষেত্রে জুন ত্রৈমাসিকে গ্রস নন-পারফর্মিং অ্যাসেটে (এনপিএ) উন্নতি হয়েছে।”

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর