টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

‘৩ লক্ষ টাকা না দিলে ভর্তি নেব না’, হাসপাতালের গাফিলতিতে অ্যাম্বুল্যান্সে মারা গেলেন করোনা রোগী

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বাংলায় (West bengal) করোনা (Covid-19) চিকিৎসা ব্যবস্থায় গাফিলতি হচ্ছে, এনিয়ে বহুবার বহু অভিযোগ উঠতে দেখা গেছে। করোনা রোগীদের সাহায্য করার বার্তা সর্বদা সরকারী তরফ থেকে প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও হাসপাতালের অবহেলায় প্রাণ দিতে হল এক করোনা রোগীর।

করোনা পজেটিভ বৃদ্ধা
কিছুদিন আগেই করোনার রোষে স্বামীকে হারিয়ে নিজেও করোনা আক্রন্ত হয়ে পড়েন বছর ৬০-এর এক বৃদ্ধা মহিলা। স্বামীকে হারিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে পার্ক সার্কাসের একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখান থেকে জানা যায়, তিনি করোনা পজেটিভ।

দিতে হবে ৩ লক্ষ টাকা
ওই মহিলা করোনা পজেটিভ হওয়ায় ওই রাতেই এক অ্যাম্বুল্যান্স ভাড়া করে তাঁর পরিবারের লোকজনেরা তাঁকে রুবির কাছে এক বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্পষ্ট জানিয়ে দেয় ৩ লক্ষ টাকা না দিলে ভর্তি নেওয়া যাবে না। তারা প্রথমে ৮০ হাজার টাকা জমা করতে পারেন। কিন্তু নেট ব্যাঙ্কিংয়ের সমস্যা থাকায় তারা চিকিৎসা শুরু করার অনুরোধ করেন।

অ্যাম্বুল্যান্সেই মারা যান করোনা রোগী
সম্পূর্ণ টাকা জমা না হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোন কথাই শুনতে নারাজ থাকে। পরবর্তীতে তারা ২ লক্ষ টাকা আরও জমা করে। কিন্তু একবারে ৩ লক্ষ টাকা দিতে না পারায়, তারা রোগীর চিকিৎসা করতে অস্বীকার করে। ফলত অ্যাম্বুল্যান্সে শুয়েই অন্তিম সময়ে মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতরাতে কাতরাতে মারা যান ওই বৃদ্ধা মহিলা। ঘটনার জেরে উত্তেজিত হয়ে ওঠে হাসপাতাল চত্বর।

গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে হাসপাতালের বিরুদ্ধে
মৃতার ছেলে এবং জামাই অভিযোগ জানিয়েছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণেই মৃত্যু হয়েছে ওই বৃদ্ধার। আনন্দপুর থানার পুলিস কর্তারা ঘটনা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছিলেন।

Back to top button
Close