এবার আরো সহজে ইনজেকশনের মাধ্যমে শরীরে দেওয়া যাবে ওষুধ! যুগান্তকারী আবিষ্কার খড়গপুর IIT-তে

   

বাংলাহান্ট ডেস্ক : এবার থেকে আরও সহজে ইনজেকশনের মাধ্যমে ওষুধ প্রয়োগ করা যাবে রোগীর শরীরে। ইনসুলিন সহ একাধিক ড্রাগ এবার আরো সহজে প্রবেশ করানো যাবে শরীরে। প্রটোটাইপ অফ মাইক্রো ডোজিং সিস্টেম উইথ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ কন্ট্রোল আবিষ্কার করে তাক লাগিয়ে দিয়েছে আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur)।

আইআইটির গবেষকরা এমন এক ধরনের ডিভাইস তৈরি করেছেন যার মাধ্যমে নিখুঁতভাবে শরীরে প্রবেশ করানো যাবে ড্রাগ। এই ড্রাগ ডেলিভারি মাইক্রো পাম্প ডিভাইস চালানো যাবে অ্যাপের সাহায্যে। এই ডিভাইসটির সাহায্যে রোগীর শরীরে নির্দিষ্ট সময়ে ও নিখুঁতভাবে প্রবেশ করানো সম্ভব হবে ড্রাগ। যেমন ধরা যাক ডায়াবেটিক রোগীদের কথা।

আরোও পড়ুন : মাত্র ৯ দিন, তাতেই কেল্লাফতে! মদ বিক্রির আয়ের কাছে নস্যি চন্দ্রযান মিশনের খরচ

ডায়াবেটিক রোগীদের নির্দিষ্ট সময় ইনসুলিন প্রয়োগ করতে হয় শরীরে। আবার অনেক সময় চিকিৎসকেরা ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিটে থাকা রোগীদের শরীরে ইনজেকশনের মাধ্যমে তরল প্রবেশ করাতে গিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হন। খড়গপুর আইআইটির গবেষকদের নতুন এই আবিষ্কার সেই কাজ আরো সহজ করে দিয়েছে।

আরোও পড়ুন : পুজোর আগে ট্র্যাকে নামছে নতুন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস! পুরী থেকে ছেড়ে এই ট্রেন কোন কোন স্টেশনে থামবে?

নতুন এই মাইক্রো পাম্প ডিভাইসটি অধ্যাপক তরুণকান্তি ভট্টাচার্যের তত্ত্বাবধানে আইআইটি খড়্গপুরের গবেষক পড়ুয়া শতভিষা মিশ্র এবং অর্কপ্রভ দত্ত তৈরি করেছেন। এই ডিভাইসে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ইনজেকশন থাকবে, এরপর স্মার্টফোনের অ্যাপের সাহায্যে টাইপ করতে হবে নির্দিষ্ট ডোজ ও সময়। এরপর রোগীর শরীরে ইনজেকশন ইনপুট করে খুব নিখুঁত পদ্ধতিতে প্রবেশ করানো যাবে ড্রাগ।

India will create the balance between Artificial intelligence and Gita

আইআইটি খড়্গপুরের গবেষক পড়ুয়ারা বর্তমানে এই কাজ করছেন আইসিএমআর এবং এইমস দিল্লির তত্ত্বাবধানে। সরকারের পক্ষ থেকে ছাড়পত্র মিললে খুব তাড়াতাড়ি বাজারে আসতে চলেছে এই ডিভাইস। গবেষক পড়ুয়া শতভিষা মিশ্র জানিয়েছেন, ব্যাগ বা পকেটে করে ছোট এই ডিভাইসটি বহন করা সম্ভব হবে। ১০০০-১২০০ টাকার মধ্যে দাম হবে এই ডিভাইসটির।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর