উন্নতি ভারতের, গণতন্ত্র সূচকে বড় লাফ! জুটল বিশেষ তকমাও

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গত বছর বিশ্ব জুড়ে গণতন্ত্র সূচকের ব্যাপক পতন হয়েছে। মোদী (Narendra Modi) জামানায় ভারতের (India) গণতন্ত্রের হাল খারাপ বলে বারংবার সরব হয়েছে বিরোধীরা‌। কেউ কেউ তো আবার মোদী জামানাকে স্বৈরতন্ত্রের সঙ্গেও তুলনা করেছেন। যদিও ব্রিটিশ সংস্থা ‘ইকনমিস্ট ইনটেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ)-র রিপোর্ট বলছে, ভারতের গণতন্ত্রের হাল অতটাও খারাপ নয়।

   

সংস্থাটি তাদের তালিকায় মোট ১৬৫টি স্বাধীন রাষ্ট্র ও দু’টি অঞ্চলের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এবং এই তালিকার একদম উপরের দিকে নায় রয়েছে নরওয়ে, নিউ জ়িল্যান্ড এবং আইসল্যান্ডের। গণতন্ত্রের সূচকে একেবারে পিছিয়ে পড়েছে উত্তর কোরিয়া, মায়ানমার এবং আফগানিস্তান। পূর্বের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে এসেছে ভারত। অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে পাকিস্তান।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই সমীক্ষায় দেখা গেছে, ২০২২ থেকে ২০২৩-এ বিশ্বে ‘গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের’ সংখ্যা বেড়েছে বটে তবে সার্বিকভাবে অবনতি হয়েছে গণতন্ত্র সূচকের। যেখানে ২০২২ এ গড় ছিল ৫.২৯, দুই বছর পর তা কমে হয়েছে ৫.২৩। এই তালিকা অনুযায়ী ভারতকে ‘ত্রুটিপূর্ণ’ গণতন্ত্রের তকমা দেওয়া হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘অর্থনৈতিক বিকাশের সম্ভাবনার’ জন্য ভারতের গণতন্ত্র সূচকের উন্নতি হয়েছে। ভারতের প্রাপ্ত নম্বর ৭.১৮, তালিকায় স্থান ৪১।

আরও পড়ুন : বিজেপির শরণে চন্দ্রবাবু! অমিত শাহের সঙ্গে আসন সমঝোতা মমতার পুরনো বন্ধুর

একই সাথে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে ভারতের দুই পড়শীদেশ। একদিকে পাকিস্তানের প্রাপ্ত নম্বর ৩.২৫, তালিকায় স্থান ১১৮। গতবারের তুলনায় ০.৮৮ পয়েন্ট কমেছে পাকিস্তানের নম্বর। অপরদিকে শি জিনপিং-র চিনের অবস্থাও অনেকটাই খারাপ। ২.১২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ১৪৮ নম্বরে স্থান পেয়েছে চিন। বাংলাদেশের অবস্থাও তথৈবচ।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর