শতরান পেলেন না, কিন্তু সৌরভের রেকর্ড ছুঁয়ে পাকিস্তানকে ব্যাকফুটে ঠেলে ড্রেসিংরুমে ফিরলেন ঈশান

   

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ শুরুতে পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছিল যে ভারতীয় দল ৩০ ওভারও ব্যাটিং করতে পারবে না। একের পর এক তারকা ক্রিকেটের ড্রেসিংরুমে ফিরছিলেন পাকিস্তানের দুর্দান্ত পেস বোলিং আক্রমণের শিকার হয়। এমন পরিস্থিতিতে ফর্মে থাকা ঈশান কিষাণ (Ishan Kishan) মাঠে নামলেন এবং ভারতীয় দলের (Indian Cricket Team) প্রাথমিক বিপর্যয়ের ধাক্কা কাটিয়ে হার্দিক পান্ডিয়ার সঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশিপ করে দলকে নিয়ে এলেন লড়াই করার মত জায়গায়।

গত বছরের শেষ দিকে দ্বিশতরান করার পরেও তাকে ড্রেসিংরুমে বসে থাকতে হয়েছিল পরের ম্যাচগুলোতে। আর গত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওডিআই সিরিজের দুর্দান্ত ছন্দে থাকা সত্ত্বেও এশিয়া কাপে তাকে একজন ওপেনার হিসেবে ব্যবহার করছে না ভারতীয় দল।

কিন্তু তা সত্ত্বেও ঈশান কিষাণ যেখানে সুযোগ পেলেন সেখানেই নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিলেন। তার স্বল্প দৈর্ঘ্যের ওডিআই কেরিয়ারে তিনি মূলত ওপেনার হিসেবেই এতদিন সাফল্য পেয়েছিলেন। কিন্তু এদিন তাকে ব্যাট করতে পাঠানো হলো ৫ নম্বরে। মাত্র ১৫ ওভারের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলা ভারতীয় দলকে তিনি ভরসা দিলেন অসাধারণ অর্ধশতরান করে।

এই দিন ৫৪ বলে ছয়টি চার এবং একটি ছক্কা সহযোগে নিজের অর্ধশতরান সম্পূর্ণ করেন ঈশান। উল্টো দিক থেকে ধীর-স্থির ব্যাটিং করে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। ভালো বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে তার এই ইনিংসটি ভবিষ্যতে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে তাকে নিয়ে বাড়তি ভাবনার খোরাক দেবে। শেষ পর্যন্ত ৮১ বলে নয়টি চার এবং দুটি ছক্কা সহযোগে ৮২ রান করে আউট হন তিনি। হ্যারিস রাউফের বলে মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়ে ড্রেসিংরুমে পেরেছেন তিনি।

এদিন একটি বিশেষ রেকর্ড করে গিয়েছেন তিনি। তৃতীয় ভারতীয় বাঁ-হাতি ব্যাটার হিসাবে ওডিআই ক্রিকেটে পরপর চারটি হাফসেঞ্চুরি করলেন তিনি। নিচে সম্পূর্ণ তালিকাটি তুলে ধরা হলো।

◆ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়: (৩১ জানুয়ারী- ১০ মার্চ ২০০২)
◆ সুরেশ কুমার রায়না: (১১ জানুয়ারী- ২৭ জানুয়ারী ২০১৩)
◆ ঈশান কিষান: (২৭ জুলাই- ২ সেপ্টেম্বর ২০২৩)

 

Avatar
Reetabrata Deb

সম্পর্কিত খবর