না চাইতেই হাতে চাঁদ পেলো BCCI! এবার দেশের মাটিতে ODI বিশ্বকাপ জিতবে রোহিতের ভারতই

   

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে (India vs Sri Lanka) এশিয়া কাপের (2023 Asia Cup) সুপার ফোর পর্যায়ে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে টার্নিং উইকেটে ভারতীয় ব্যাটারদের চরম কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি পড়তে হয়েছিল। শ্রীলঙ্কার দুই স্পিনার দুনীথ ওয়েলালাগে এবং চারিথ আশালঙ্কার স্পিনের সামনে অসহায় হয়ে পড়েছিল গোটা ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ। পাকিস্তান ম্যাচের হিরো বিরাট কোহলি (Virat Kohli) এদিন ব্যর্থ। রোহিত শর্মার (Rohit Sharma) অর্ধশতরান এবং ঈশান কিষাণ ও লোকেশ রাহুলের (KL Rahul) পার্টনারশিপে ভর করে দ্বীপরাষ্ট্রর ক্রিকেট দলের সামনে ২১৩ রানের টার্গেট রাখতে পেরেছিল ভারত। কিন্তু টার্নিং উইকেটে কুলদীপ যাদব, রবীন্দ্র জাদেজার ভেলকিতে দুর্দান্ত জয়ের ছিনিয়ে নিয়েছিল ভারত।

বল হাতে ভারতও দুর্দান্ত প্রত্যাঘাত করেছিল। ভারতের বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাটিং করতে নেমে অসুবিধার মুখোমুখি হয় শ্রীলঙ্কাও। নিয়মিত ব্যবধানে তারা উইকেট হারাতে থাকে। ফাস্ট বোলার এবং স্পিনার, দুই বিভাগের তরফ থেকে শ্রীলঙ্কার ব্যাটারদের সর্বোচ্চ মানের পরীক্ষা নেওয়া শুরু হয়। শ্রীলঙ্কাকে লড়াইয়ে রেখেছিল ধনঞ্জয় ডি সিলভা (৪১) এবং ওয়েলালাগের (৪২*) জুটি। তাদের মধ্যে ৬৩ রানের একটি পার্টনারশিপ হয়। কিন্তু রবীন্দ্র জাদেজার বলে ধনঞ্জয় বড় শট মারতে গিয়ে নিজের উইকেট ছুড়ে আসার পরে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে শ্রীলঙ্কা। ১৭২ রানে তারা অলআউট হয়ে যায়।

এই দুর্দান্ত বোলিংয়ের জন্য অনেকটাই কৃতিত্ব প্রাপ্য স্পিনারদের। কুলদীপ যাদব পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পাঁচ উইকেটে নেওয়ার পর এদিন ৪ উইকেট নিয়েছেন। সেই সঙ্গে আরেকজন যার কথা উল্লেখ না করলে অন্যায় হবে তিনি হলেন লোকেশ রাহুল। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অসাধারণ শতরান করার পর কিছুক্ষণ কিপিংও করেছিলেন। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ম্যাচে তিনি শুরু থেকে কিপিং করলেন।

cb kl rahul

আরও পড়ুন: বড় চাপ নামলো BCCI-এর কাঁধ থেকে! এশিয়া কাপ ফাইনালে পৌঁছে বিশ্বজয়ের হাতিয়ার পেলেন রোহিত

বিশ্বকাপের আগে বিসিসিআইয়ের জন্য চিন্তার খুব বড় জায়গা হয়ে দাঁড়িয়েছিল এই উইকেটরক্ষক ব্যাটারের ব্যাপারটা। শুধুমাত্র ঈশান কিষাণের ওপর ভরসা করে বিশ্বকাপে নামা উচিত হবে কিনা তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলছিলেন। লোকেশ রাহুল বড় চোট কাটিয়ে এসে উইকেট রক্ষণের কাজটা ঠিকঠাক করতে পারবেন কিনা সেই নিয়েও অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন। কিন্তু আজ উইকেটের পেছনে দুটি ক্যাচ ধরে এবং একটি অসাধারণ স্টাম্পিং করে রাহুল বোঝালেন যে অনায়াসে তার ওপর ভরসা করা যায়।

আরও পড়ুন: এশিয়া কাপে হিট হিটম্যান, ফাইনালে ওঠার দিন সচিনের বিরাট রেকর্ড ভাঙলেন রোহিত!

অথচ সবকিছু হিসাব মত চললে পাকিস্তান ম্যাচের মাঠে নামারই কথা ছিল না রাহুলের। পরে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন যে পাকিস্তান ম্যাচের দিন টসের পাঁচ মিনিট আগে কোচ রাহুল দ্রাবিড় এসে তাকে জানান যে শ্রেয়স আইয়ারের পিঠে অস্বস্তি রয়েছে এবং তাকে খেলতে হতে পারে। নিজের কিটব্যাগটাও হোটেল থেকে সেদিন নিয়ে আসেননি রাহুল। পরে সেটিকে হারানো হয় এবং ব্যাক হাতে নেমে শতরান করে এবং কিপিংয়েও ভরসা দিয়ে রাহুল হয়ে উঠেছেন রোহিতের হাতের তুরুপের তাস। ঘরের মাটিতে আয়োজিত হতে চলে বিশ্বকাপে যে ভারতের মিডল অর্ডার যে তাকে ছাড়া অসম্পূর্ণ সেটা তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন নিজের পারফরম্যান্সের মধ্যে দিয়ে।

 

Avatar
Reetabrata Deb

সম্পর্কিত খবর