চড়েন তো প্রতিদিনই, জানেন কী ভারতীয় রেলের ইঞ্জিন কত CC-র হয়? অঙ্ক মাথা ঘুরিয়ে দেবে

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ভারতীয় রেল (Indian Railway) ও তার পরিচলন ব্যবস্থা নিয়ে সহজেই হাজারো প্রশ্ন মানুষের মাঝে উঠেছে। প্রতিদিন কয়েক কোটি যাত্রী এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যাওয়ার জন্যে ভারতীয় রেলকে বিশ্বাস করে। সেটা কাছে যাওয়ার হোক কি দূরে যাওয়ার হোক অনেক মানুষ আছেন যারা ট্রেনে যাতায়াত করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। প্রতিদিন এতো বেশি পরিমান যাত্রীকে তাদের গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য ভারতীয় রেল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

   

আপনারা নিশ্চই প্রায়ই ট্রেনে ভ্রমণ করে থাকেন, কিন্তু ট্রেনের ইঞ্জিনের খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে কি জানেন? ট্রেনকে যে ইঞ্জিনটি টেনে নিয়ে যায় তা সম্পর্কে আপনাদের আদৌ কোনো ধারনা আছে? এই বিষয়ে সঠিক তথ্যটি জানতে পরে ফেলুন প্রতিবেদনটি।

ট্রেনের ইঞ্জিন হিসেবে পরিচিত লোকোমোটিভ (Locomotive), লোকোপাইলট (Loco Pilot) পুরো ট্রেনটিকে সঠিক দিকে নিয়ে যায়। ইঞ্জিনের ক্যাপাসিটি ১৬টি সিলিন্ডার এবং একটি সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ১৫০ লিটার। কিন্তু, আমরা যদি শুধু গাড়িরদিকে তাকাই, তাহলে দেখা যাবে গাড়িতে সিলিন্ডার মাত্র ৪টি। তবে আপনাকে এ সম্পর্কে জানতেই হবে যে গাড়ির ইঞ্জিনে মাত্র ১-২ লিটার ইঞ্জিন থাকে যেখানে ট্রেনে প্রায় ৫০ লিটারের ফুয়েল ট্যাঙ্ক থাকে।

আরও পড়ুন : শাসকদলের সাংসদের ৫ ঠিকানায় হানা আয়কর দফতরের! উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য

যদি ট্রেনের সিসির কথা বলি, একটি ট্রেনে একটি সিলিন্ডারে ধারণ ক্ষমতা প্রায় ১০হাজার ৯৪১ সিসি। যদি আপনারা এই সংখ্যাকে ১৬ দিয়ে গুন্ করতে যান তাহলে মোট ক্ষমতা দাঁড়াবে প্রায় ১.৭৫ লক্ষ সিসিতে পৌঁছায়। এবারে নিশ্চই আপনারা অনুমান করতে পারছেন।

আরও পড়ুন : মাঝ রাস্তায় হাঙ্গামা, মদ খেয়ে বেসামাল সানি! ভিডিও ভাইরাল হতেই বিপাকে ‘গদর’ হিরো

ট্রেনের ইঞ্জিন তার লোডের সাথে সমস্ত কোচও টেনে নেয় এবং বিভিন্ন ধরণের ইঞ্জিনের মধ্যে ডিজেল এবং বৈদুত্যিক ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়। বর্তমানে ৫২ শতাংশ ট্রেনে ডিজেল ইঞ্জিন দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে এবং বৈদুত্যিক ট্রাকগুলিতে ইঞ্জিনগুলি চালানো হচ্ছে। অর্থাৎ এই ইঞ্জিনগুলি ডিজেল এবং বৈদুত্যিক দুটি ক্ষেত্রেই চলতে সক্ষম।