বৃষ্টির সন্ধ্যে জমে ক্ষীর, হাতের কাছে থাকা উপকরণ দিয়েই বানিয়ে ফেলুন গরম মাছের কচুরি

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বিকেল হতেই কলকাতার আকাশ কালো। দমকা ঝড়ের পরেই ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি। অস্বস্তিকর গরমের হাত থেকে সাময়িক স্বস্তি। বৃষ্টিভেজা ঠাণ্ডা হাওয়া গায়ে মেখে অফিস থেকে ফিরতে ফিরতে বা চায়ের কাপ হাতে জানলার বাইরে বৃষ্টি দেখতে দেখতে মনটা একটু ভাজাভুজির (Snacks) জন্য আনচান করে ওঠে তো?

   

তাহলে আর দেরি কেন? বৃষ্টির দিনের গরমাগরম স্ন্যাকস হিসেবে বানিয়ে ফেলুন মাছের কচুরি (Macher Kochuri)। উত্তর কলকাতার জনপ্রিয় স্ট্রিট ফুড মাছের কচুরির কথা অনেকেই শুনে থাকবেন। বেশ কিছু দোকান বেশ জনপ্রিয়ও এই আইটেমের জন্য। কিন্তু যখন বাড়িতেই খুব সামান্য উপকরণ দিয়ে সহজেই কচুরি বানিয়ে ফেলতে পারবেন, তখন আর দোকানের জিনিস খাওয়ার প্রয়োজন কী? কী কী লাগবে মাছের কচুরি তৈরিতে, চলুন দেখে নিই-

macher kochuri 3

মাছের কচুরি তৈরির উপকরণ:

কচুরির জন্য-

১. ২ টেবিল চামচ ঘি

২. আধ কাপ ময়দা

৩. স্বাদ মতো নুন

৪. ভাজার জন্য সাদা তেল

কচুরির পুরের জন্য-

১. ৫০০ গ্রাম ভেটকি মাছ (রুই মাছেও করতে পারেন)

২. আদা, রসুন বাটা

৩. পাঁচফোড়ন

৪. হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো

৫. চিনি, নুন স্বাদ মতো

৬. সরষের তেল

kochuri 1

কচুরি তৈরির প্রণালী:

১. ময়দার মধ্যে সামান্য নুন এবং ঘি দিয়ে, পরিমাণ মতো জল দিয়ে মেখে নিন। একটি ভিজে কাপড় দিয়ে ময়দাটা ঢেকে রাখুন।

২. পুর তৈরির জন্য প্রথমে সামান্য হলুদ দিয়ে সেদ্ধ করা মাছের টুকরো গুলোর কাঁটা ছাড়িয়ে ভাল করে মেখে নিন।

৩. কড়াইতে সরষের তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিয়ে আদা এবং রসুন বাটা দিন। সামান্য ভাজা ভাজা হলে তার মধ্যে দিয়ে দিন মেখে রাখা মাছ।

৪. এরপরে দিন লঙ্কা গুঁড়ো, স্বাদ মতো নুন এবং মিষ্টি।

৫. মাছের মধ্যে মশলাটা ভাল ভাবে মিশে যাওয়া পর্যন্ত কষান।

kochuri2

৬. এবার কচুরি তৈরির পালা। আগে থেকে মেখে রাখা ময়দার লেচি কেটে বেলে নিন। এরপর লেচির মধ্যে এক চামচ করে পুর দিয়ে লেচির মুখ বন্ধ করে আবারো বেলে নিন। তবে এবারে সাবধানে, নয়তো পুর বেরিয়ে যেতে পারে।

৭. কড়াইতে সাদা তেল গরম করে কচুরি ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন আলুর তরকারির সঙ্গে।