মাধ্যমিকে প্রশ্নপত্র ফাঁস রুখতে মাস্টারস্ট্রোক বোর্ডের! বসবে ‘ইউনিক কোড’, কিভাবে করবে কাজ?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ মাধ্যমিক (Madhyamik) হোক বা উচ্চমাধ্যমিক (Higher Secondary) প্রশ্নফাঁসের ঘটনা প্ৰতি বছরই ঘটে থাকে। সেই ঘটনায় লাগাম দিতে এবার মাস্টারস্ট্রোক। প্রশ্নফাঁস রুখতে আগেভাগেই সতর্ক মধ্যশিক্ষা পর্ষদ (WBBSE) ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। এবার প্রশ্নপত্রের গোপনীয়তা রক্ষা করতে নেওয়া হচ্ছে নয়া রণকৌশল।

কাজ করবে ‘ইউনিক কোড’

এবার প্রশ্নপত্রে ইউনিক কোডের ওয়াটারমার্ক বসাতে চলেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। যাতে করে এতে কেউ প্রশ্নপত্রের ছবি ফাঁস করলে সঙ্গে সঙ্গেই তাকে সনাক্ত করা যাবে। এককথায় বলতে গেলে নাতেনাতে ধরা যাবে। প্রতিটি প্রশ্নপত্রে থাকবে আলাদা আলাদা কোড নম্বরের ওয়াটারমার্ক। তার অপর ছাপা থাকবে প্রশ্ন।

   

আরও পড়ুনঃ  বিমানে চেপে তড়িঘড়ি হায়দরাবাদ ছুটলেন অভিষেক! হঠাৎ হল টা কি নেতার?

কোড থাকায় কেউ প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে ফাঁস করলেই ধরা পড়ে যাবে। প্রশ্নপত্রের কোড নম্বর দেখে তৎক্ষণাৎ ওই পরীক্ষার্থীকে শনাক্ত করা যাবে। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ পৃথক ভাবে প্রশ্নপত্রে কোডিং সিস্টেম চালু করার কথা জানিয়েছে।

candidates

কি বলছেন মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি?

এই বিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদের (WBBSE) সভাপতি রামানুজ গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রতিটি প্রশ্নপত্রে একটি করে ‘স্বতন্ত্র কোড’ বসানো থাকবে। কেউ পরীক্ষা শুরুর হওয়ার পর যাতে ছবি তুলে প্রশ্নপত্র ফাঁস না করতে পারে, সেই জন্যই এই ব্যবস্থা।’

কিভাবে কাজ করবে এই কোড?

মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদ সভাপতি জানিয়েছেন, প্রতিটি প্রশ্নপত্রের একটি করে ইউনিক সিরিয়াল নম্বর দেওয়া থাকবে। পরীক্ষা হলে একজনকে যখন প্রশ্নপত্র দেওয়া হবে তখনই প্রশ্নপত্রের ইউনিক কোডটি তার উত্তরপত্রে ও অ্যাটেন্ডেন্স শিটে লিখে দিতে হবে। এরপর যদি কোনও প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় তাহলে কোডটি দেখলেই পরিষ্কার হয়ে যাবে কোন জায়গা থেকে প্রশ্নের ছবি ফাঁস হয়েছে এবং প্রশ্নপত্রটি কার।’

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর