‘পুরনো চাল ভাতে বাড়ে আর…’, তৃণমূলে নবীন-প্রবীণ দ্বন্দ্বে অবশেষে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন মমতা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বছর ঘুরলেই লোকসভা নির্বাচন (Lok Sabha Election)। শাসক থেকে বিরোধী ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত প্রস্তুতিতে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি‌। ওদিকে এই আবহেই বেশ কিছুদিন ধরে চলছে তৃণমূল কংগ্রেসের (Trinamool Congress) নবীন-প্রবীণ তর্ক। সম্প্রতি এই বিতর্কে মুখ খুলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। সেই থেকে আরও চড়েছে বিতর্কের পারদ। বৃহস্পতিবার অবশেষে এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

   

এদিন দেগঙ্গার সভা থেকে সাফ সাফ নিজের অবস্থান জানিয়ে দিলেন মমতা। নবীন-প্রবীণ দুই শিবিরকেই নিয়েই চলতে হবে। দুই শিবিরকেই তার প্রয়োজন বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee)। পাশাপাশি লোকসভার আগে দলকে কড়া বার্তাও দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে মমতা বলেন, “নিজেদের আরও সংগঠিত করতে হবে। ছাত্রযুবদের এগিয়ে দিতে হবে আমাদের। সিনিয়র নেতাদের যোগ্য সন্মান দেওয়া উচিৎ। পুরোনোকে দরকার, নতুনকেও দরকার। কেউ অভিমানে বাড়িতে বসে থাকলে তার কাছে যান। আমি বার বার বলে আসছি। পুরনো চাল ভাতে বাড়ে, আর নতুন চাল আগে বাড়ে। দু’টো চালকেই দরকার আমার। সবাইকে নিয়ে চলতে হবে।”

আরও পড়ুন: শীতকে জোরসে ধাক্কা! নিউ ইয়ার থেকেই তুমুল বৃষ্টিতে ভিজবে দক্ষিণবঙ্গ? আবহাওয়ার বড় খবর

দলীয় বার্তা দিয়ে মমতা বলেন, “ছাত্রযৌবন আরও বেশি করে এগিয়ে আসুন। দেশমাতৃকার জন্য, রাজ্যের জন্য, মানুষের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ুন। একজোটে কাজ করুন। শুনতে পাচ্ছি কিছু কিছু এলাকায় কেউ কেউ নিজেদের কেউকেটা মনে করছেন। দলের মুখটা মনে রাখছেন না। আমাকে যে এত খাটতে হচ্ছে সেসব মাথায় রাখছেন না। আপনাদের জন্য, মানুষের জন্য নিজের জীবনটা উৎসর্গ করেছি, সারাজীবন মার খেতে খেতে এই জায়গায় এসে পৌঁছেছি।”

mamata banerjee pti new d

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই নবীনদের হয়ে মুখ খুলেছেন কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh), মদন মিত্রের (Madan Mitra) মত তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা। তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তো ঘোষণা করে দেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া কাউকে তিনি নেতা মানেন না। এদিকে তৃণমূল অনুগামীরাও নাকি অনেক ক্ষেত্রে দুই শিবিরে বিভক্ত। এক হল মমতা আর এক হল অভিষেক শিবির। এই সমস্ত নিয়ে বহু তর্ক-বিতর্ক দ্বন্দ্বের মাঝে এবার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।