পাহাড়ে লুকিয়ে ছিল নুহ হিংসার অভিযুক্ত! খবর পেয়েই এনকাউন্টার করে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে এল পুলিস

বাংলা হান্ট ডেস্ক : নুহ হিংসায় (Nuh Violence) ঘটনায় জড়িত অভিযুক্ত মুনফেদ ও তার এক সঙ্গীকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। বিগত কয়েকদিন ধরেই দুজনের সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছিল পুলিস। অবশেষে অভিযুক্ত মুনফেদ ও শাইকুল দুজনকেই গ্রেফতার করে। পুলিস অভিযুক্তদের কাছ থেকে একটি অবৈধ দেশীয় কট্টা, একটি ট্র্যাম্প এবং একটি মোটর সাইকেলও উদ্ধার করেছে। তাওডুর সিলখো গ্রামের পাহাড়ের কাছে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

গতরাতে নুহতে হিংসার আসামিদের আস্তানায় অভিযান চালাতে আসা তাওদু সিআইএ দল ও আসামিদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পুলিসের এই অভিযানে একজন অভিযুক্তের পায়ে গুলি লাগে। তাকে আহত অবস্থায় মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, গত ৩১ জুলাই মিছিলে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় নুহের শিয়ালখো পাহাড়ে দুই আসামি আত্মগোপনে থাকার খবর পায় তাওদু সিআইএ।

nuh violence

খবর পেয়ে পুলিস অভিযুক্তদের আস্তানায় পৌঁছলে তারা গুলি চালাতে থাকে। এর জবাবে পুলিস গুলি চালায়। এ সময় অভিযুক্ত মুনফেদের দলের একজনের ডান পায়ে গুলি লাগে। শাকিউলকে পুলিস পাকড়াও করে। আহতদের নুহের সরকারি মেডিকেল কলেজ, নলহারে ভর্তি করা হয়েছে।

নুহ পুলিস সূত্রে খবর, দেশীয় বন্দুক, একটি জীবন্ত ট্র্যাম্প এবং একটি মটোরবাইক উদ্ধার করেছে পুলিস। অপরদিকে, নলহার মেডিকেল কলেজে পুলিস বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

সিআইএ তাওডু এসএইচও সন্দীপ মোর এবং সদর তাওডু থানার ইনচার্জ হুকুম সিংও এনকাউন্টারের খবর পেয়ে আহতদের দেখতে হাসপাতালে পৌঁছন। সাব-ইন্সপেক্টর সতীশ কুমারের নেতৃত্বে আহত মুনফেদের নিরাপত্তায় একাধিক সশস্ত্র সৈন্যের মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া জানা যাচ্ছে আরও অনেকের তথ্য রয়েছে পুলিসের কাছে। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে পুলিস তদন্ত করছে বলে খবর।

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর