‘এই মাঠেই বদলা নেওয়া হবে’, ডুরান্ড ফাইনালের আগে ইস্টবেঙ্গলের উদ্দেশ্যে হুঙ্কার মোহনবাগান ভক্তদের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ চলতি মরশুমের প্রথম সাক্ষাতে একাধিক সুপারস্টার সমৃদ্ধ মোহনবাগানকে (Mohun Bagan) হারিয়ে দুর্দান্ত জয় পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল (East Bengal)। তারপর ৮ টি ডার্বি ম্যাচে হারার পর নিজেদের চেয়ে খাতায়-কলমে অনেক শক্তিশালী চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের দলকে হারিয়ে উচ্ছাসে ভেসে গিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা। এরপর গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে লড়াকু ফুটবল খেলে ফাইনালে পৌঁছেছে লাল হলুদ ব্রিগেড। পথে হারিয়েছে রাউন্ডগ্লাস পাঞ্জাব, গোকুলাম কেরালা ও নর্থইস্ট ইউনাইটেডের মতো প্রতিপক্ষকে। কিন্তু সর্বোচ্চ সম্মান জিততে গেলে তাদের ফির একবার হারাতে হবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের।

   

অপরদিকে মোহনবাগানের যাত্রাপথটা ছিল আরও কঠিন। মুম্বাই সিটি এফসি এবং এফসি গোয়ার মত কঠিন প্রতিপক্ষ তাদের সামনে পড়েছিল ডার্বি হারের পর। কিন্তু মোহনবাগান সেই সমস্ত চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করেছে এবং ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে নিয়েছে। সমর্থকরা আত্মবিশ্বাসী যে এবারে গ্রুপ ম্যাচের বদলা নিয়ে নেবে তাদের দল।

ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা অবশ্য ডুরান্ড কমিটির নির্বাচিত রেফারিদের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলছে সোশ্যাল মিডিয়ায় বারবার। মুম্বাই সিটি এফসি বিরুদ্ধে ম্যাচে মুম্বাইকে ন্যায্য পেনাল্টি দেওয়া হয়নি বা সেমিফাইনালে এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে অন্যায় ভাবে মোহনবাগানের হাতে একটি পেনাল্টি তুলে দেওয়া হয়েছে এমন অভিযোগ উঠছে তাদের তরফ থেকে।

খাতায়-কলমে এই মুহূর্তে মোহনবাগানের দলটির সঙ্গে কোন তুলনায় চলে না ইস্টবেঙ্গলের। অঘটন রোজ রোজ ঘটে না, সেটাও জানেন ফুটবলপ্রেমীরা। নিষেধের দোষত্রুটি গুলি কাটিয়ে উঠলে মোহনবাগান যে ফাইনালে নিশ্চিত ভাবে জয় পাবে সেটা অতি বড় ইস্টবেঙ্গল সমর্থকও মনে মনে জানেন।

আরও পড়ুন: পিছিয়ে গিয়েও সেমিফাইনাল জিতলো মোহনবাগান! ডুরান্ড ফাইনালে ফের কলকাতা ডার্বি

কার্লেস কুয়াদ্রাতের ছেলেদের একমাত্র ভরসা হলো অদম্য মনের জোর এবং নিজেদেরকে ছাপিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা। গ্রুপ পর্বের ম্যাচে সেটা করে দেখাতে পেরেছিল নন্দকুমাররা। ফাইনালে কি সাদিকু, কামিন্স, পেট্রাটোসদের মতো অনেক এগিয়ে থাকা তারকাদের বিরুদ্ধে আবার ইস্টবেঙ্গল সেই একই খেলাটাকে খেলতে পারবে? সম্ভাবনা অত্যন্ত কম থাকলেও উত্তরটা সময় দেবে।

 

Avatar
Reetabrata Deb

সম্পর্কিত খবর