টাইমলাইনবিনোদন

নিজের ধর্মকে শ্রদ্ধা, অন‍্য ধর্মের বেলায় মশকরা, মীরের কাণ্ডে ‘মীরাক্কেল’ বয়কটের ডাক নেটজনতার!

বাংলাহান্ট ডেস্ক: ফের একবার নেটজনতার রোষের মুখে পড়লেন জনপ্রিয় কৌতুকাভিনেতা মীর আফসার আলি (mir afsar ali)। ধর্মীয়, সাম্প্রদায়িক বিষয় নিয়ে অযথা তামাশা ও দ্বৈত মনোভাব পোষন করার অভিযোগ এনে মীরকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে নেটিজেনদের একাংশ।

শুরুটা হয়েছিল দূর্গাপুজোয়। দূর্গাপুজোর পাঁচ দিনই সোশ‍্যাল মিডিয়ায় অনুরাগীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্ট করেন মীর। কিন্তু গন্ডগোলটা হয় তাঁর শুভেচ্ছা জানানোর ভঙ্গিতে। এক একদিন এক এক রকম কৌতুকপূর্ণ ছবি দিয়ে ষষ্ঠী, সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমীর শুভেচ্ছা জানান মীর। অথচ সম্প্রতি নবী দিবসে খুবই সাধারন ভাবে সকলকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

এরপরেই সোশ‍্যাল মিডিয়ায় ওঠে শোরগোল। নেটিজেনদের একাংশ দ্বিচারিতার অভিযোগ আনে মীরের প্রতি। দূর্গাপুজোয় এমন কৌতুকপূর্ণ পোস্ট করে শুভেচ্ছা অথচ নবী দিবসে দিব‍্যি ‘মার্জিত’ পোস্ট, অভিনেতার এমন আচরণের কারণ জানতে চান বিক্ষুব্ধ নেটিজেনরা।

এমনকি ওঠে মীরের সঞ্চালিত জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘মীরাক্কেল’ বয়কট করার দাবিও। অভিনেতার উদ্দেশে একের পর এক তোপ দাগতে থাকেন নেটিজেনরা। এক ব‍্যক্তি তীব্র কটাক্ষ করে মন্তব‍্য করেন, ‘আমরা যদি মীরাক্কেলকে বয়কট করি তাহলে মীর কেন ওর বাবাও ক্ষমা চাইবে’।

আবার আরেকজন লিখেছেন, ‘বিদ‍্যা বালানের জায়গায় যদি একটি সাধারন দূর্গা মূর্তি দিয়ে পোস্ট করতেন তাহলেও একই রকম লাইক কমেন্ট পেতেন। আপনার জনপ্রিয়তাতেও একটুও ভাটা পড়ত না’। তবে সোশ‍্যাল মিডিয়া তোলপাড় হলেও মীর বা মীরাক্কেলের তরফে এখনো কোনো মন্তব‍্যই করা হয়নি। অবশ‍্য এর আগেও এমন বিক্ষোভ সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে মীরকে।

Back to top button