আর মাত্র কিছুদিনের অপেক্ষা! এবার সামনে এল অযোধ্যার রাম মন্দিরের গর্ভগৃহের নতুন ছবি

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) অযোধ্যায় (Ayodhya) রাম মন্দির (Ram Mandir) নির্মাণের কাজ বর্তমানে দ্রুতগতিতে চলছে। এমতাবস্থায়, মাঝেমধ্যেই মন্দিরের নির্মাণকাজ সংক্রান্ত ছবিও সামনে আসছে। সেই রেশ বজায় রেখেই শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক চম্পত রাই তাঁর টুইটার হ্যান্ডেলে রাম মন্দিরের কিছু সাম্প্রতিক ছবি প্রকাশ করেছেন।

ওই ছবিগুলিতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে রাম মন্দির নির্মাণের ক্ষেত্রে ছাদ ঢালাইয়ের কাজ প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। পাশাপাশি ভগবান রাম লালার গর্ভগৃহের কাজও অনেকটাই এগিয়েছে। ছবিগুলিতে মন্দিরের প্রবেশপথটিকেও দেখা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই শ্রী রাম মন্দিরের ৭০ শতাংশের বেশি কাজ শেষ হয়ে গিয়েছে। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, ২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে রামলালার মূর্তি স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

পাশাপাশি, জানা গিয়েছে চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে ভগবান রামের গর্ভগৃহ প্রস্তত হয়ে যাবে। এমতাবস্থায়, আগামী বছরে মকর সংক্রান্তির পর ওই গর্ভগৃহ খুলে দেওয়া হবে মন্দিরে আগত ভক্তদের জন্য। যদিও, সেই সময়ে মন্দিরের দ্বিতীয় তলার নির্মাণের কাজ অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য যে, রাম দরবার ছাড়াও সেখানে মাতা অন্নপূর্ণা, ভগবান শঙ্কর এবং বজরংবলীসহ একাধিক মন্দির নির্মিত হবে। এদিকে, গত বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জনসাধারণকে অযোধ্যায় আগামী বছর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রাম মন্দিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

এই প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারের একজন মুখপাত্র বলেছেন যে, মুখ্যমন্ত্রী অযোধ্যায় চলমান বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতির দিকে নজর রেখেছেন। রাজ্য সরকার শহরটির বিমানবন্দর এবং রেলস্টেশন সম্প্রসারণ সহ অযোধ্যার বিভিন্ন প্রকল্পগুলিতে দ্রুত কাজ করছে।

রাম জানকী পথের নির্মাণকাজ: আরও জানা গিয়েছে যে, শাহাদতগঞ্জ থেকে নয়া ঘাট পর্যন্ত ১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ রামপথ নির্মাণের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এদিকে, রাম জানকী পথ ও ভক্তি পথের জন্যও পরিকল্পনা চলছে। রাম জানকী পথের প্রস্থ হবে ৩০ মিটার। আর ভক্তি পথ হবে ১৪ মিটার চওড়া। এই পথ নির্মাণের উদ্দেশ্য হল শ্রী রাম জন্মভূমি এবং হনুমান গড়ি মন্দিরে ভক্তদের চলাচল সহজতর করা।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর