TMC নেতা-সহ ২০ জনের টাকা নিয়ে পগারপার দম্পতি! তাদের আসল পরিচয় জানলে চমকে যাবেন

   

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ তৃণমূল (Trinamool Congress) নেতা-সহ ২০ জনের কোটি-কোটি হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় শোরগোল উত্তর চব্বিশ পরগনায় (North 24 Parganas)। সাধারণ মানুষকে লোভ দেখিয়ে প্রতারণার (Money Fraud) অভিযোগ উঠল বসিরহাট (Basirhat) পুরসভার ১১ নম্বর ওয়ার্ডে জামরুল তলার এক দম্পতির বিরুদ্ধে।

বসিরহাটের সুদীপ্ত বল ও তার স্ত্রী মিঠু নাগ বলের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, স্থানীয় বড় বড় ব্যবসায়ীদের টার্গেট করতেন এই দম্পতি। ব্যবসায়ীদের ফ্ল্যাট সহ বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার নাম করে বিপুল পরিমান টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়।

ইতিমধ্যেই ওই দম্পতিকে গ্রেফতারও করেছে বসিরহাট থানার পুলিশ। প্রতারিতদের বসিরহাটের অঞ্চল সহ সভাপতি তথা তৃণমূল নেতাও রয়েছেন। প্রতারিতরা অভিযোগ, টাকা দিয়েও কোনও কাজ না হওয়ায় টাকা ফেরত চাইতে অভিযুক্তর বাড়িতে যান তারা। তবে ততক্ষনে পগারপার দম্পতি।

আরও পড়ুনঃ সেহগলের ভাঙলো হাত, অনুব্রত শুকিয়ে কাঠ! গরু পাচার মামলায় ‘নাজেহাল’ দুই ‘ভাই’

এরপর নিজেদের টাকা ফেরত পেতে সোজাসুজি বসিরহাট থানার দ্বারস্থ হন তারা। সেখানে সুদীপ্ত বল ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে পাঁচ কোটি টাকার আত্মসাতের অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে পুলিশ। বুধবার গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কলকাতার খান্না এলাকায় একটি বাড়ি থেকে দম্পতিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ TMC অঞ্চল সভাপতির হাতে থরে থরে সাজানো টাকার বান্ডিল! ভিডিও ভাইরাল হতেই তোলপাড়

money laundering

কলকাতা পুলিশের ও বসিরহাট থানার যৌথ অভিযানে অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে সুদীপ্ত-মিঠু। বৃহস্পতিবার দু’জনকেই বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হয়। সুদীপ্ত বলের বিরুদ্ধে প্রমাণ মিললেও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে এখনও কোনও স্পষ্ট প্রমাণ মেলেনি।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর