ঘুম উড়বে চিনের! এবার দিল্লি থেকে সরাসরি রেলপথে পৌঁছনো যাবে মধ্যপ্রাচ্য, সামনে এল অবাক করা তথ্য

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার ফের একটি বড়সড় পদক্ষেপের পথে ভারত (India)! এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, এবার আমাদের দেশ রেলপথ এবং জলপথের মাধ্যমে সরাসরি মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে যুক্ত হবে। এমনকি, ইতিমধ্যেই এই প্রসঙ্গে সম্পন্ন হয়েছে বৈঠকও। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সালিভান এরকমই এক পরিকল্পনা সামনে এনেছেন।

এমতাবস্থায়, চলতি মাসের শুরুতে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াধে সৌদির প্রধানমন্ত্রী তথা শাহজাদা মহম্মদ বিন সলমন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাশাহির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা শেখ তাহনুন বিন জায়েদ আল নাহিয়ান সহ ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল এই বিষয়ে বৈঠক করেছেন বলে জানা গিয়েছে। মূলত, বর্তমান সময়ে মধ্যপ্রাচ্যে চিনের ক্রমবর্ধমান প্রভাবের মোকাবিলা করতেই এই তিনটি দেশের একইসাথে একটি বৃহত্তর রেলওয়ে নেটওয়ার্ক তৈরি করার প্রসঙ্গটি সামনে এসেছে।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, যত দিন এগোচ্ছে ততই মধ্যপ্রাচ্যে প্রভাব বিস্তার করছে চিনের “বেল্ট অ্যান্ড রোড” মিশনটি। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যেই আফগানিস্তান পর্যন্ত এই প্রকল্পকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে জিনপিংয়ের দেশ। যার ফলে এই অঞ্চলগুলিতে চিনের শক্তি ক্রমশ বাড়ছে। এমতাবস্থায়, চিন্তায় রয়েছে আমেরিকা। পাশাপাশি, একমাত্র যৌথ উদ্যোগের মাধ্যমেই চিনকে মোকাবিলা করা যাবে বলে মনে করছে তারা। তাই, তারা ভারতকে সঙ্গে নিয়েই এই প্রকল্পের কথা ভাবছে।

এদিকে, ইতিমধ্যেই হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এই প্রসঙ্গে সম্পন্ন হওয়া বৈঠক সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, ভারত সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের আরও নিরাপদ এবং সমৃদ্ধ যোগাযোগ অবশ্যই প্রয়োজন। যার ফলে এই বিশাল পরিকাঠামো প্রকল্পটির মাধ্যমে আরবের দেশগুলিকে সংযুক্ত করা যাবে রেলরুটের মাধ্যমে। পাশাপাশি, জলপথেও যোগাযোগ তৈরি হবে।

modi jinping 4

কিভাবে এল এই পরিকল্পনা: এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, গত ১৮ মাস ধরে চলা I2U2 গ্রূপের আলোচনা থেকেই নতুন এই পরিকল্পনাটির প্রসঙ্গ উঠে এসেছে। উল্লেখ্য যে, I2U2 গ্রূপে সামিল রয়েছে ভারত, ইজরায়েল, সংযুক্ত আরব এবং আমিরশাহি। এই আন্তর্জাতিক গ্রূপটি ২০২১ সালের শেষের দিকে তৈরি হয়েছিল।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর