গুরুগ্রামের পর এবার পাওয়াল, মন্দিরে পেট্রল বোমা হামলা উপদ্রবীদের! বাদ পড়ল না বসত বাড়িও

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : সোমবার নূহতে (Nuh Violence) জলাভিষেক যাত্রার সময় যে সহিংস ঘটনা ঘটেছিল তার প্রভাব এখনও পুরোদমে রয়েছে। এরইমধ্যে মঙ্গলবার গভীর রাতে পালওয়ালে একটি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থান এবং তাদের বাড়িতে কিছু দুষ্কৃতী পেট্রোল বোমা এবং পাথর নিয়ে আক্রমণ চালায়। এর জেরে ধর্মীয় উপাসনালয়ে আগুন লেগে যায়। পাথর ছোড়ার কারণে বেশ কয়েকজন আহতও হয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

খবর পাওয়া মাত্রই অতিরিক্ত পুলিস সুপার জসলিন কৌরের নেতৃত্বে বিরাট সংখ্যায় পুলিস ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তবে তার আগেই দুষ্কৃতীরা বাইকে করে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। পুলিস তাৎক্ষণিকভাবে দমকলের ইঞ্জিন এনে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের পালওয়াল জেলা সিভিল হাসপাতালে এবং পরে নুহ নাল্লাদ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার সকাল থেকেই অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পালওয়ালের পরিবেশ অত্যন্ত উত্তেজনাপূর্ণ ছিল।

nuh 2

সারাদিন গোটা শহর জুড়ে তান্ডব চালায় দুষ্কৃতিরা। পুলিস এক জায়গায় গিয়ে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তারা অন্য জায়গায় গিয়ে একটা না একটা ঘটনা ঘটাতে থাকে। গভীর সন্ধ্যা পর্যন্ত এ ধারা অব্যাহত ছিল। সন্ধ্যার পর মানুষের বাড়িতে ঢুকে কিছু বাইকে-বাহিত মুখোশধারী লোক রসুলপুর রোডের একটি ধর্মীয় স্থান ও বাড়ির বাইরে পাথর ছুড়তে শুরু করে।

একই সময়ে পুরনো জিটি রোডের পেয়ারওয়ালি গালির কাছে একটি ধর্মীয় স্থানে পেট্রোল বোমা ছুড়ে আগুন জ্বালিয়ে দেয়। ঘটনার পরই বিপুল সংখ্যক পুলিস সেখানে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সলিম ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হাজী ইউনুস আহমেদ বলেন, রাত ৯টার দিকে হঠাৎ করে ছয়-সাতটি বাইকে আসা মুখোশধারী যুবকরা ধর্মীয় স্থান ও বিশেষ সম্প্রদায়ের বাড়িতে পাথর ছুড়ে। তাদের হাতে পেট্রোল ভর্তি বোতল ছিল।

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর