টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

ক্ষমতাহারা হতে পারে ইমরান! আস্থা ভোটের আগে কার্যত হার স্বীকার পাক প্রধানমন্ত্রীর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জাতীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার সময় বিরোধী দলগুলোকে চরম কটাক্ষ করেন। তিনি বলেম বিরোধী দলগুলো গণতন্ত্রকে হাসির খোরাক বানিয়ে দিয়েছে। ইমরান খান অভিযোগ করে বলেন, সিনেট নির্বাচনে বিরোধী প্রার্থী ইউসুফ রাজা গিলানি টাকা বিতরণ করছেন। বলে দিই, দেশের অর্থমন্ত্রী আবদুল হাফিজ শেখের হারের পর ইমরান খান সংসদে শনিবার আস্থা ভোটের প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি আস্থা ভোটের আগে কার্যত হার স্বীকার করে বলেছেন, আমি বিরোধী আসনে বসতে রাজি আছি কিন্তু দুর্নীতির সঙ্গে আপোষ করব না।

ইমরান খান বলেন, ‘ওঁরা ভেবেছিল যে, আমার উপর অনাস্থা প্রস্তাবের তলোয়ার ঝোলাবে আর আমি যদি নিজের পদকে ভালোবাসি, তাহলে ওদের উপর চলা সমস্ত মামলা প্রত্যাহার করে নেব। কিন্তু এবার আমি নিজে অনাস্থা প্রস্তাব আনছি। আমি সংসদে সবার সামনে বিশ্বাস চাইব। আমি আমার দলের নেতাদের বলব যে, আপনারা আমার সঙ্গে নাও থাকতে পারেন, এটা আপনাদের অধিকার। আপনারা সংসদে হাত উঠিয়ে বলে দিন। কোনও ব্যাপার না আমি বিরোধী আসনে বসে পড়ব।”

বিরোধী নেতাদের চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ইমরান খান বলেন, ‘আমি বিধানসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনছি। আমি বিরোধী আসনে বসি আর বিধানসভার বাইরে বসি, আমি আপনাদের (বিরোধী নেতাদের) ততদিন ছাড়ব না, যতদিন না আপনারা এই দেশের টাকা ফেরত দিচ্ছেন। আমার জীবনে কোনও পার্থক্য হবে না। যতদিন আমি বেঁচে আছি, আমার দেশকে বাঁচাতে এদের বিরুদ্ধে লড়ব।”

ইমরান খান বলেন, ‘আমি রাজনীতিতে টাকা কামানোর জন্য আসিনি। আমার কাছে আগে থেকেই টাকা আর নাম আছে, আমি আমার গোটা জীবন শান্তিতে কাটাতে পারতাম। কিন্তু আমি দেশের জন্য রাজনীতিতে আসার সিদ্ধান্ত নিই। আমি কোনও ভাবেই দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে আপোষ করব না।” বলে রাখি, স্বাধীন পাকিস্তানের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত কোনও পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রীই নিজের টার্ম সম্পূর্ণ করতে পারেন নি। এর আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী যেই হোক না কেন, সময়সীমার আগে সরকার ভেঙে পড়েছে।

Back to top button