টাইমলাইনবিনোদন

ট্রোল করার জন‍্য টাকা খাওয়াচ্ছেন আমির! পুরোটাই সাজানো ঘটনা? এবার বিষ্ফোরক লাল সিং-পরিচালক

বাংলাহান্ট ডেস্ক: আর মাত্র দুদিন। তারপরেই দেশ জুড়ে বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে আমির খান (Aamir Khan) ও করিনা কাপুর খান অভিনীত ‘লাল সিং চাড্ডা’ (Laal Singh Chaddha)। কয়েক বছর ধরে দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত ঘুরে ঘুরে শুটিং করার পর, একাধিক বার মুক্তির তারিখ বদলে অবশেষে ১১ অগাস্টে এসে থিতু হয়েছেন আমির‌। কিন্তু দুঃসময় তাঁর পিছু ছাড়ছে না।

আইপিএল ২০২২ এর ফিনালে তে লাল সিং চাড্ডার ট্রেলার প্রকাশ‍্যে এনেছিলেন আমির। তার পরপরই টুইটারে ছবিটি সহ নায়ক নায়িকা আমির, করিনাকে বয়কটের ডাক উঠেছিল টুইটারে। ‘বয়কট লাল সিং চাড্ডা’ হ‍্যাশট‍্যাগ দিয়ে অভিযোগ উঠেছিল, আমির খান ভারত বিদ্বেষী। এই দেশকে ‘অসহিষ্ণু’ বলে দাবি করে তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী ভারত ছেড়ে চলে যেতে চেয়েছিলেন।


শুধু তাই নয়, ছবির শুটিংয়ের সময়ে ভারত বিরোধী তুরস্কের ফার্স্ট লেডির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন আমির। সব মিলিয়ে ক্ষোভের আগুন চড়চড়িয়ে বেড়েছিল নেটিজেনদের, যার বিষ্ফোরণ হল ছবির মুক্তির আগে। এখন হাত জোড় করেও বিশেষ সুবিধা করতে পারছেন না আমির।

এর মাঝেই আরেক বিষ্ফোরক কাণ্ড ঘটালেন লাল সিং চাড্ডার পরিচালক অদ্বৈত চন্দন। সোশ‍্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছেন, ‘আমাকে বলা হয়েছে, মানুষকে নাকি আমি্য স‍্যারকে ট্রোল করার জন‍্য টাকা দেওয়া হচ্ছে। এটা সত‍্যিই দুঃখজনক আর খুব অন‍্যায়। আমি কেনই বা ওঁকে বিনামূল‍্যে ট্রোল করতে যাব?’ পুরোটাই যে তিনি কটাক্ষ করে লিখেছেন তা স্পষ্ট।


প্রসঙ্গত, এর আগে কঙ্গনা রানাওয়াতও দাবি করেছিলেন যে এই পুরো নিন্দার ব‍্যাপারটাই নাকি সাজানো, আমিরেরই ষড়যন্ত্র, যাকে বলে নেতিবাচক  প্রচার। সোশ‍্যাল মিডিয়ায় কঙ্গনা লিখেছিলেন, ‘আমার মনে হয়, লাল সিং চাড্ডা মুক্তির আগে যে এত নেতিবাচকতা ছড়িয়েছে সবটাই আমির খান জির সুনিপুণ পরিকল্পনা। এ বছর একটি কমেডি ছবির সিক‍্যুয়েল ছাড়া কোনো হিন্দি ছবি সফল হয়নি। শুধু ভারতীয় সংষ্কৃতির বাহক এবং স্থানীয় উপাদান যুক্ত দক্ষিণী ছবিই চলেছে।’

তিনি আরো লিখেছিলেন, ‘একটা হলিউডের রিমেক এমনিতেই চলত না। কিন্তু এখন সবাই বলবে ভারত অসহিষ্ণু। হিন্দি ছবির দরকার দর্শকদের চাহিদাটা বোঝার। হিন্দু মুসলিমের ব‍্যাপার নয়। আমির খান জি হিন্দু বিরোধী পিকে বানিয়ে, ভারতকে অসহিষ্ণু বলেও জীবনের বড় হিটগুলো দিয়েছেন। ধর্ম বা মতাদর্শ নিয়ে মাতামাতি বন্ধ হোক। এতে ওদের বাজে অভিনয় বা বাজে ছবিগুলো ধামাচাপা পড়ে যায়।

Related Articles