৩ হাজার কোটি টাকা পাবে বাংলার গরিব মানুষ! ভোটের আগেই বিরাট মন্তব্য মোদীর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে বাংলার মানুষদের বড় আশ্বাস দিলেন প্রধানমন্ত্রী। রাজ্যের নানান দুর্নীতি কাণ্ডে এখনও অবধি প্রায় ৩০০০ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে কেন্দ্রীয় এজেন্সি ইডি (ED)। এবার সেই টাকাই গরিব মানুষদের ফেরানোর উদ্যোগ নিচ্ছেন বলে জানালেন পিএম মোদী (Narendra Modi)।

   

মঙ্গলবার রাতে বসিরহাটের বিজেপি (BJP) প্রার্থী রেখা পাত্রর সঙ্গে ফোনে কথা বলার পর কৃষ্ণনগরের প্রার্থীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার সময়ই রাজ্যের দুর্নীতি বিষয়টি উত্থাপন করেন রানিমা অমৃতা রায় (Rani Maa Amrita Roy)। তখনই মোদী জানান, বাংলা থেকে ইডির বাজেয়াপ্ত করা টাকা ফেরানোর জন্য আইনি পরামর্শ নিচ্ছেন।

কৃষ্ণনগরের বিজেপি প্রার্থী প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, স্কুলে ভর্তি হওয়া থেকে শুরু করে সরকারি চাকরির নিয়োগ, সবকিছুতেই দুর্নীতির ছোঁয়া লেগেছে। একথা শুনেই মোদী তাঁকে বলেন, ‘অমৃতাজি আমি আপনাকে একটা কথা জানাই। আমি এই বিষয়ে আইনি পরামর্শ নিচ্ছি। পশ্চিমবঙ্গ থেকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট প্রায় ৩০০০ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে। এটা গরিব মানুষের টাকা। কেউ শিক্ষক হতে, কেউ আবার ক্লার্ক হতে এই টাকা দিয়েছিলেন’।

আরও পড়ুনঃ কোটিপতি, পেশায় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী! কল্যাণের প্রাক্তন জামাই BJP প্রার্থীর ইতিহাস চমকে দেবে

প্রধানমন্ত্রীর কথার সঙ্গে সহমত পোষণ করেন রানিমা অমৃতা। এরপর মোদী বলেন, ‘আমি সেই কারণে আইনি পরামর্শ নিচ্ছি। আমার ইচ্ছা, নতুন সরকার তৈরির পর একটা নিয়ম বানানো কিংবা আইনি ব্যবস্থা তৈরি করা যাতে গরিব মানুষের টাকা যা ঘুষ হিসেবে নেওয়া হয়েছে কিংবা তাঁদের থেকে লুঠ করা হয়েছে সেটা যাতে ফেরত দিতে পারি’।

pm narendra modi says he is trying to ensure money attached by ed in wb goes to poor people

এখানেই না থেমে কৃষ্ণনগরের বিজেপি প্রার্থীকে একথা প্রচার করার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। ইডি বাজেয়াপ্ত করা টাকা আদতে গরিব মানুষের পকেট থেকে এসেছে। সেই টাকা বিতরণের জন্য আইনি পরামর্শ গ্রহণ করছেন প্রধানমন্ত্রী। একথা সাধারণ মানুষের মধ্যে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলেন তিনি। জানা যাচ্ছে, কৃষ্ণনগরের প্রার্থীর সঙ্গে মিনিট পাঁচেক কথা বলেন মোদী। ভোটে জিতলে প্রথম ১০০ দিনের মধ্যে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রে কী কী করতে হবে, প্রধানমন্ত্রী তা তৈরি রাখার কথাও বলেন বলে খবর।

Sneha Paul
Sneha Paul

স্নেহা পাল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর সাংবাদিকতা শুরু। বিগত প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর