গায়ে পেট্রোল ঢেলে হুমকি দিচ্ছিলেন পুলিশকর্মী, বান্ধবী জ্বালিয়ে দেন আগুন! হাসপাতালে মৃত্যু

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রেমিকা সম্প্রতি দূরত্ব বাড়িয়েছিলেন। প্রেমিক আন্দাজ করছিলেন প্রেমিকা হয়ত সম্পর্ক তৈরি করছে অন্য কারোর সাথে। পুরনো সম্পর্ক আবার ঠিক করার উদ্দেশ্যে প্রেমিক হাজির হন প্রেমিকার কাছে। কিন্তু প্রেমিকার মন জয় করা তো দূর, উল্টে প্রেমিকা প্রেমিকের গায়ে পেট্রোল ঢেলে লাগিয়ে দিলেন আগুন।

আবার প্রেমিক-প্রেমিকা দুজনেই কর্মরত পুলিশে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বেঙ্গালুরুতে।বেঙ্গালুরুর এক পুলিশ কর্মীর গায়ে আগুন লাগিয়ে দিলেন তার প্রেমিকা। পুলিশের পক্ষ থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী এই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বৃহস্পতিবার। নিহত ব্যক্তির নাম সঞ্জয় এবং সে একজন পুলিশ কর্মী। 

   

আরোও পড়ুন : রাম মন্দির তৈরি না হওয়া পর্যন্ত করবেন না বিয়ে! শপথের ৩১ বছর পর ডাক পেলেন অযোধ্যা থেকে

সঞ্জয়ের একটি প্রেমের সম্পর্ক ছিল পুলিশের হোমগার্ড রানীর সাথে। বেঙ্গালুরুর বাসনাগুড়ি থানায় কর্মরত ছিলেন দুজনে। সম্প্রতি রানী দূরত্ব বাড়াতে শুরু করেন সঞ্জয়ের থেকে। সঞ্জয় লক্ষ্য করেন তার প্রেমিকা রানী অনেকটা সময় অন্য কারোর সাথে চ্যাট ও ফোন কলে ব্যস্ত। এরপর বুধবার সঞ্জয় রানীকে বোঝানোর জন্য হাতে পেট্রোল নিয়ে উপস্থিত হন তার কাছে।

আরোও পড়ুন : মটর থাকলেও নেই পনির! বিয়ে বাড়িতে বাঁধল যুদ্ধ, চেয়ার দিয়ে বেধড়ক মারধর আমন্ত্রিতদের

কিন্তু সেখানে রানীর সাথে তুমুল কথা কাটাকাটি হয় সঞ্জয়ের। সঞ্জয় হুমকি দেন তিনি গায়ে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা করবেন। এরপর সঞ্জয় নিজের গায়ে পেট্রোল ঢাললে রানী সঞ্জয়ের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। এরপর দাউদাউ করে জ্বলতে থাকেন সঞ্জয়। তৎক্ষণাৎ রানী নিজেই সঞ্জয়কে নিয়ে যান হাসপাতালে।

police n 1703160098

যদিও হাসপাতালে গেলে সঞ্জয়ের মৃত্যু হয় বৃহস্পতিবার। সঞ্জয়ের পরিবারের তরফে অভিযোগ ইচ্ছাকৃতভাবে সঞ্জয়ের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন রানী। পুলিশের মতে, নিজের একটি পরিবার থাকা সত্ত্বেও সঞ্জয়ের সঙ্গে রানির সম্পর্ক ছিল। এ ঘটনায় পুত্তেনাহল্লি থানার পুলিশ একটি মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর