চাকরির খবরটাইমলাইন

ডিসেম্বরেই মিলতে পারে নিয়োগ, ভোটের আগে তড়িঘড়ি রেকর্ড সংখ্যক ইন্টারভিউ বোর্ড গঠন করল psc

ভোটের দামামা বেজে গিয়েছে বেশ কিছুদিন আগেই। শাসক বিরোধী উভয় শিবিরের তর্জায় এই মুহুর্তে সরগরম বাংলার রাজনীতি। এই মুহুর্তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধীদের সব চেয়ে বড় অভিযোগ হল কর্মসংস্থান। এবার সেই অভিযোগকে ভিত্তিহীন করতে তড়িঘড়ি বেশ কিছু শূন্যপদে নিয়োগ করতে চলেছে রাজ্য সরকার।

বাংলায় কর্মী নিয়োগের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চলেছে পিএসসি। জানা যাচ্ছে ডিসেম্বর মাসেই বেশ কিছু নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। এই লক্ষ্যে একাধিক ইন্টারভিউ বোর্ডও গঠন করেছে কমিশন। যার ফলে নতুন বছরে বহু বেকারের মুখে হাসি ফুটতে চলেছে।

করোনা সংক্রমণের আবহে সরকারি অনেক পরীক্ষাই বন্ধ ছিল। খাদ্য ও দমকল বিভাগে থমকে ছিল নিয়োগ। ইতিমধ্যেই ১ ডজন ইন্টারভিউ বোর্ড তৈরি করা হয়েছে অবসরপ্রাপ্ত আইএএস ও আইপিএসদের নিয়ে।

অন্যদিকে, হাইকোর্টে বড় সড় ধাক্কা খেল রাজ্য। উচ্চপ্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগে স্বজন পোষণ ও দুর্নীতির কারনে বাতিল হল গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়াই। বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের বেঞ্চ রাজ্যকে নতুন করে ফের নিয়োগ প্রক্রিয়া চালু করার নির্দেশ দিয়েছে।

প্রায় ৭ বছর আগে মেধাতালিকাতে দুর্নীতি, অনিয়ম সহ একগুচ্ছ মামলার কারনে স্থগিত হয়েছিল রাজ্যে উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ৷ দীর্ঘ শুনানির পর অবশেষে আজ তার রায় ঘোষণা করা হয়। সেই রায়ে বড় সর ধাক্কা খেল সরকার। মেধাতালিকা থেকে শুরু করে সমস্ত কিছুই বাতিল করে দিয়েছে হাইকোর্ট। পুরো প্রক্রিয়াটিই নতুনভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

তবে আগের পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল হলেও নতুন করে নিয়োগ হতে চলেছে। আগামী ৪ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে সেই প্রক্রিয়া৷ ১০ মে এর মধ্যে সকলকে ইন্টারভিউতে ডাকা হবে৷ ৩১ জুলাই এর মধ্যে পুরো প্রক্রিয়া শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যারা নিয়োগ প্রক্রিয়া থেকে বাদ গিয়েছিল তাদের সকলকেও সুযোগ দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আদালতের তরফে। রাজ্য সরকার চাইলে ভার্চুয়াল ভাবেও নিয়োগ করতে পারে৷

 

Back to top button