৩ দিন ধরে চলবে যজ্ঞ, জানুয়ারিতে বড় চমক, পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে বিশেষভাবে সক্ষমদের জন্য ‘বিশেষ’ ব্যবস্থা

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক : আর মাত্র দিন কয়েকের অপেক্ষা। তারপরেই ধুমধাম করে উদ্বোধন হতে চলেছে অযোধ্যার রাম মন্দির (Ayodhya Ram Mandir)। সেই সাথে তাল মিলিয়ে নতুনভাবে সাজানো হচ্ছে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরকেও (Puri Jagannath Mandir)। সূত্রের খবর, প্রায় ৯৪৩ কোটি টাকা খরচ করে তৈরী করা হয়েছে এই মন্দির‌। জেনে অবাক হবেন যে, এই মন্দির নির্মাণের জন্য প্রায় ৬০০ মানুষ নিজেদের ঘরবাড়ি ছেড়েছেন।

পুরীর এই মন্দিরে ১০ মিটার চওড়া পথ তৈরি করা হয়েছে ভক্তদের জন্য। সেই সাথে আরও ৭ মিটার চওড়া ‘বাফার জোন’ তৈরি করা হয়েছে পথের দু’পাশে। ত্রয়োদশ শতাব্দীর এই মন্দিরে দেওয়া হয়েছে আধুনিকতার ছোঁয়া। সেই সাথে এক ৬০০০ ভক্তের লাইন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে এখানে। প্রায় ৪০০০ পরিবারের জিনিস স্টোর করে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে খবর।

এছাড়াও ভক্তদের সুবিধার জন্য পানীয় জল, শৌচাগার ইত্যাদির ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি ভক্তরা যাতে কোনও সমস্যায় না পড়ে সেই জন্য তৈরি করা হয়েছে ইনফরমেশন ডেস্ক। গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য মাল্টি লেভেল পার্কিং ব্যবস্থাও করা হয়েছে বলে খবর। সেই সাথে পুলিশের জন্য তৈরি করা হয়েছে একটি লেন। রয়েছে কন্ট্রোল রুম।

আরও পড়ুন : শীতের কামড়ে জবুথবু বাংলা, তারমাঝেই ঘনাচ্ছে ঘূর্ণাবর্ত! দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া নিয়ে বড় আপডেট IMD-র

সূত্রের খবর, ৩ দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে ওড়িশার এবং বাকি দেশের প্রায় ১০০০ এরও বেশি মন্দিরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তালিকায় রয়েছে, কামাখ্যা, বৈষ্ণোদেবী, শিরডির সাই মন্দির, চারধাম। সেই সাথে বিশেষ আমন্ত্রণ গেছে নেপালের রাজার কাছেও‌। এই গোটা বিষয়টির তদারকি করছেন পুরীর মন্দিরের মুখ্য প্রশাসক রঞ্জন কুমার দাস।

আরও পড়ুন : ‘শ্যাম বাহাদুর’ই অনুপ্রেরণা, নিরীহদের প্রাণ বাঁচাতে নিজের জীবন দিলেন IAF পাইলট, স্যালুট দেশবাসীর

screenshot 2022 07 22 204751 min

৩ দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ভিআইপিদের জন্যেও রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। সূত্রের খবর, লোকপ্রাণ যজ্ঞ শুরু হবে আগামী ১৫ জানুয়ারি। সেই যজ্ঞ শেষ হবে আগামী ১৭ জানুয়ারি। সেই সাথে শুরু হবে বেদপাঠ। অন্যদিকে, বিশেষভাবে সক্ষমদের কথা বিবেচনা করে বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুরী জেলা প্রশাসন। তাদের জন্য তৈরি হচ্ছে আলাদা পথ।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর