পুজোর আগেই বড় উপহার, এই দিন চালু হচ্ছে গরিবের বন্দে ভারত! দিনক্ষণ ঘোষণা রেলের

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে দিন যত এগোচ্ছে ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে রেলের (Indian Railways) যাত্রীসংখ্যা। এমতাবস্থায়, ক্রমবর্ধমান যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন পদক্ষেপও গ্রহণ করা হচ্ছে রেলের তরফে। শুধু তাই নয়, রেলপথকে আরও উন্নত এবং গতিশীল করার দিকেও নজর দিচ্ছে সরকার। ইতিমধ্যেই দেশজুড়ে সফর শুরু করছে বন্দে ভারতের (Vande Bharat Express) মতো অত্যাধুনিক সেমি-হাই স্পিড ট্রেন। যেটি অল্প সময়ের মধ্যেই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে যাত্রীদের মধ্যে। তবে, এবার রেল আরও কিছু বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।

এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, বন্দে ভারতের স্লিপার ভার্সান এবং বন্দে মেট্রোর পাশাপাশি এবার ভারতীয় রেল এই ফ্ল্যাগশিপ ট্রেনের একটি নতুন ধরণের নন-এসি ট্রেন সামনে আনতে চলেছে। শুধু তাই নয়, বন্দে ভারত নন-এসি এক্সপ্রেস হবে প্রথম “পুশ-পুল ট্রেন”। যেটি এই বছরের অক্টোবরের মধ্যে চালু হবে বলে আশা করা হচ্ছে। পাশাপাশি, গত শুক্রবার এই প্রসঙ্গে রেলের একজন উচ্চ আধিকারিক বিস্তারিত তথ্য জানিয়েছেন।

মূলত, ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরির জেনারেল ম্যানেজার বি জি মাল্য বলেছেন যে, “আমরা এই অর্থবর্ষের মধ্যে বন্দে ভারতের স্লিপার ভার্সান চালু করব। পাশাপাশি, আমরা এই অর্থবর্ষে বন্দে মেট্রোও লঞ্চ করব। এছাড়াও, আমরা নন-এসির যাত্রীদের জন্য যে ট্রেনটি শুরু করবো সেটি হল নন-এসি পুশ-পুল ট্রেন। যেখানে ২২ টি কোচ এবং লোকোমোটিভ থাকবে। পাশাপাশি, এই লঞ্চটি ৩১ অক্টোবরের আগে ঘটতে পারে।”

আরও পড়ুন: iPhone 15 সিরিজেও ISRO-র দাপট! মিলবে বিশেষ সুবিধা, গ্রাহকদের জন্য বড় পদক্ষেপ Apple-এর

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, পুশ-পুল বন্দে ভারত ট্রেনে দু’টি লোকোমোটিভ সহ ২২ টি কোচ থাকবে। উভয় পাশে একটি করে থাকবে লোকোমোটিভ। পাশাপাশি, এটির প্রোটোটাইপ রোল আউটের নির্ধারিত শিডিউলের থেকে এগিয়ে রয়েছে। যেটি গত মাসে রিপোর্ট করা হয়েছিল। এই ট্রেনগুলি প্রায় ১৩০ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিতে চালানোর জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং এতে স্লিপার এবং দ্বিতীয় শ্রেণির ক্যাটাগরি থাকবে।

আরও পড়ুন: ৬০০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ! দুঃসময়ে “পুরোনো বন্ধু”-কে পাশে পেলেন আদানি

শুধু তাই নয়,”‘বন্দে সাধারণ” নামে পরিচিত, এই ট্রেনগুলি নন-এসি যাত্রীদের জন্য ভ্রমণের সময়ে আরও ভালো স্বাচ্ছন্দ্য এবং সুবিধে প্রদান করবে। এছাড়াও, রয়েছে দুর্দান্ত কিছু ফিচার্সও। যার মধ্যে রয়েছে পর্যাপ্ত চার্জিং পয়েন্ট, ভালো ইন্টেরিয়র, আলো এবং টয়লেট। রিপোর্ট অনুযায়ী, ২২ টি কোচের এই ট্রেনটিতে ১২ টি স্লিপার ক্লাস কোচ, ৮ টি সেকেন্ড সিটিং কোচ এবং বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের জন্য ও লাগেজ রাখার জন্য বাকি ২ টি কোচ থাকবে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর