তৃণমূল বিধায়ক জাফিকুলের বাড়ি থেকে উদ্ধার ১ কেজি সোনার গয়না! পেয়ে যা করল CBI

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে গত বৃহস্পতিবার মুর্শিদাবাদের ডোমকলের তৃণমূল বিধায়ক জাফিকুল ইসলামের (TMC MLA Jafikul Islam) বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই। তল্লাশি শেষে গোয়েন্দা সংস্থার জানিয়েছিল বিধায়কের বাড়ি থেকে মোট ৩৫ লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয়। এদিকে শুক্রবার সিবিআই জানিয়েছে জাফিকুলের বাড়ি থেকে ১ কোজি সোনা উদ্ধার হয়েছে। বিপুল পরিমাণ সোনার বাজারমূল্য খতিয়ে দেখতে কলকাতায় নিয়ে এসেছে CBI।

বাজার মূল্য কত?

   

সিবিআই সূত্রে খবর, বিভিন্ন রকম গয়না উদ্ধার হয়েছে জাফিকুলের বাড়ি থেকে। যার কোনও ক্রয় নথি দেখাতে পারেননি বিধায়ক। এরপরই ওই গয়না বাজেয়াপ্ত করে সিবিআই। প্রাথমিক ভাবে অনুমান করা হচ্ছে মজুরি ও কর বাদে ওই সোনার বাজার মূল্য প্রায় ৬০ লক্ষ টাকার কাছাকাছি।

প্রসঙ্গত, লক্ষীবারে বিধায়কের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই (CBI Raid)। তারপর ম্যারাথন তল্লাশি। প্রায় সাড়ে ১১ ঘণ্টা পর বিধায়কের বাড়ি থেকে বের হয় সিবিআই। সন্ধ্যার কিছু পরে হাতে তিনটি ব্যাগ নিয়ে জাফিকুল ইসলামের বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন: শীতের পথে কাঁটা ঘূর্ণিঝড়! বজ্রবিদ্যুৎ-সহ তুমুল বৃষ্টিতে ভাসবে দক্ষিণবঙ্গ: আজকের আবহাওয়া

শৌচাগার থেকে উদ্ধারের ৭ লক্ষ ৯০ হাজার

তল্লাশির মাঝেই বিকেলে টাকা গোনার যন্ত্র নিয়ে জাফিকুলের বাড়িতে ঢোকেন সিবিআই আধিকারিকেরা। সন্ধ্যায় জানা যায়, বিধায়কের বাড়ির শৌচাগার থেকে মোট সাত লক্ষ ৯০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তবে একটু পরেই শোনা যায় সব মিলিয়ে ২৫ লক্ষ টাকা নগদ উদ্ধার করে সিবিআই। এরপর বিধায়কের শোয়ার ঘরে তল্লাশি শুরু করেন তদন্তকারীরা।

tmc mla cbi 2

বেডরুমেও টাকার পাহাড়

রিপোর্টে অনুযায়ী, বিধায়কের বিছানার তলা থেকে পরে আরও ১০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে সিবিআই। বিধায়ক সহ তার পরিবারের লোকেরা জানান সম্প্রতি বেশ কিছু সম্পত্তি বিক্রি করা হয়েছে। সেই টাকাই তদন্তকারীরা পেয়েছেন। তবে সম্পত্তি বিক্রির টাকা এভাবে নগদে বাড়িতে রাখা কোন কারণে সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

সিবিআই সূত্রে দাবি, জাফিকুল ইসলাম ১৩ বিএড কলেজ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মালিক। জাফিকুল নাকি নিয়োগ দুর্নীতিতে ধৃত তৃণমূল বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যের ঘনিষ্ঠও। বিএড, ডি.এল.ইডি, ইঞ্জিনিয়ারিং এমনকি ফার্মাসিস্ট কলেজও রয়েছে তার নামে। তদন্তকারীদের আরও দাবি, নিয়োগ দুর্নীতিতেই ধৃত কুন্তল ঘোষের সঙ্গেও নাকি তার যোগাযোগ ছিল।