আদালতের কাছে ক্ষমা চাইলেন নিয়োগ দুর্নীতির জীবনকৃষ্ণ! তবুও হল জরিমানা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গত বছর থেকে নিয়োগ দুর্নীতি (Recruitment Scam) মামলায় একের পর এক গ্রেফতার হয়েছে শাসকদলের নেতা মন্ত্রী থেকে শুরু করে একাধিক বিধায়ক। চলতি বছরেই সেই তালিকায় নাম জুড়েছে বড়ঞার তৃণমূল বিধায়ক (TMC MLA) জীবনকৃষ্ণ সাহার (Jiban Krishna Saha)। আপাতত তিনি জেলবন্দি। শুক্রবার আলিপুর সিবিআই বিশেষ আদালতে (Alipore CBI Court) রোষের মুখে পড়লেন জীবনকৃষ্ণ ও তার আইনজীবী।

ঘটনা হল, একসঙ্গে দুই আইনজীবীর জামিনের আবেদন জানানোয় বিরাট ক্ষুব্ধ আদালত। শেষে বিচারকের কাছে ক্ষমা চাইলেন বড়ঞার বিধায়ক জীবনকৃষ্ণ সাহা। প্রসঙ্গত নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে চলতি বছরের ১৭ এপ্রিল সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হন জীবনকৃষ্ণ। তারপর থেকে একাধিকবার জামিনের আবেদন করেন তিনি।

জানা যায় চলতি মাসে ১ তারিখ বিধায়কের আইনজীবীরা তার জামিনের আবেদন জানান। অন্যদিকে তার অন্য এক আইনজীবী আবার কলকাতা হাই কোর্টে নিজের মক্কেলের জামিনের আবেদন করেন। তবে নিয়ম অনুযায়ী হাই কোর্টে জামিনের আবেদন করা থাকলে একই মামলায় নিম্ন আদালতে জামিনের আবেদন করা যায় না।

একসঙ্গে দুই আইনজীবীর জামিনে আবেদনের ঘটনায় জীবনকৃষ্ণ শোকজ করে সিবিআই আদালত। যদিও অভিযুক্তর আইনজীবীরা আজ সিবিআই আদালতে জানান তার অন্য আইনজীবী যে কলকাতা হাই কোর্টে জীবনকৃষ্ণেরই জামিনের আবেদন করেছেন এই বিষয়ে তাদের জানা ছিল না।

এরপরই আদালতের ভর্ৎসনার মুখে পড়ে বিচারকের কাছে ক্ষমা চান জীবনকৃষ্ণ সাহা ও তার আইনজীবী। বিচারক জীবনকৃষ্ণর উদ্দেশে বলেন, “এই ধরনের কাজ ভবিষ্যতে কখনও করবেন না। তাহলে কিন্তু আপনারই অসুবিধা হবে।”

jiban krishna saha

পরবর্তীতে কলকাতা হাই কোর্ট ও নিম্ন আদালতের আইনজীবীদের নিজেদের মধ্যে সংযোগ রেখে কাজ করার নির্দেশও দেন বিচারক। পাশাপাশি বিধায়ক জীবনকৃষ্ণ সাহার ১০০ টাকা জরিমানাও করে আদালত। ওই টাকা জেলা লিগ্যাল সার্ভিস অথরিটির কাছে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।