টাইমলাইনবিনোদন

মাদক সরবরাহকারীর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রিয়ার ভাইয়ের, মাদক সেবন করতেন রিয়ার বাবাও! ফাঁস হোয়াটসঅ্যাপ চ‍্যাট

বাংলাহান্ট ডেস্ক: যত দিন যাচ্ছে সুশান্ত সিং রাজপুত (sushant singh rajput) মামলায় ততই স্পষ্টতর হয়ে উঠছে মাদক চক্রের যোগসূত্র। রিয়া চক্রবর্তী (rhea chakraborty) ও তাঁর ভাই শৌভিক চক্রবর্তীকে (showik chakraborty) আগে থেকেই সিবিআই (CBI) জেরা করছে মাদক চক্রের সঙ্গে যুক্ত থাকার সন্দেহে। তদন্তে নেমেছে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব‍্যুরোও। এবার সামনে এসেছে এক বিষ্ফোরক তথ‍্য যা সুশান্ত মামলার তদন্তে অত‍্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার টানা আট ঘন্টা রিয়ার বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীকে (indrajit chakraborty) জেরা করে সিবিআই। কিন্তু জানা গিয়েছে তাঁর বয়ানে সন্তুষ্ট নন তদন্তকারী অফিসাররা। বুধবার ফের সিবিআই এর জেরার সামনে পড়েছেন ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী। অপরদিকে মাদক চক্রে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩ জন মাদক সরবরাহকারীকে গ্রেফতার করেছে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব‍্যুরো‌।


ফৈয়াজ আহমেদকে গ্রেফতার করা হয় গোয়া থেকে এবং জায়েদ ও বসিত নামে দুজনকে গ্রেফতার করা হয় মুম্বই থেকে। এর মধ‍্যে জিজ্ঞাসাবাদে রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তীর নাম নিয়েছে জায়েদ। শৌভিক মাদক সংক্রান্ত বিষয়ে নিয়মিত তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখত বলে দাবি করেছে সে।

অপরদিকে মঙ্গলবার এক সংবাদ মাধ‍্যমের তরফে ফাঁস করা হয়েছে এক মাদক সরবরাহকারীর সঙ্গে শৌভিক চক্রবর্তীর হোয়াটসঅ্যাপ চ‍্যাট। সেখান থেকেই মিলেছে এক বিষ্ফোরক তথ‍্য। চ‍্যাটে নিজের বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীর জন‍্য মাদক চাইতে দেখা গিয়েছে শৌভিককে।

চ‍্যাটে শৌভিককে লিখতে দেখা যায়, ‘একটা বুম চাই। বাবার দরকার। জানতাম না বাবার ‘মাল’ শেষ হয়ে গিয়েছে’। উত্তরে মাদক সরবরাহকারী লেখে, ‘আমারও শেষ। কাল নিয়ে আসছি।’ এই চ‍্যাট থেকে পরিষ্কার, রিয়া ও শৌভিকের বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী নিজেও মাদক সেবন করতেন এবং ছেলে মেয়ের এই নেশার বিষয়ে জানতেন।

উল্লেখ‍্য, শৌভিকের চ‍্যাটের এই মাদক সরবরাহকারীকেই গ্রেফতার করেছে পুলিস। অনুমান করা হচ্ছে, বুধবার জেরায় এই মাদক সংক্রান্ত বিষয়েই ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীকে জেরা করবে সিবিআই।

জানা গিয়েছে, মাদক সংক্রান্ত বিষয়ে রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে কথোপকথনের জন‍্য সিবিআইয়ের জেরার মুখে পড়েছেন জাতীয় স্তরের বিলিয়ার্ড ও স্নুকার খেলোয়াড় ঋষভ ঠক্কর। মঙ্গলবার তাঁকে জেরা করে সিবিআই।

Back to top button